হোয়াইটচ্যাপলে অনুষ্ঠিত চাকুরি মেলায় যোগ দেন ৪ শতাধিক লোক


নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

টাওয়ার হ্যামলেট্‌সঃশত শত চাকুরি প্রত্যাশি ও বাসিন্দা গত সপ্তাহে হোয়াইটচ্যাপলে এসেছিলেননিয়োগদাতাদের সাথে সরাসরি দেখা করতে এবং নিজেদের কেরিয়ারে নতুন ধাপ শুরু করতে।হোয়াটচ্যাপলের আইডিয়া স্টোরে ২৯ আগষ্ট বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত টাওয়ার হ্যামলেটস জব ফেয়ার বা চাকুরি মেলায় ৪ শতাধিক লোক যোগ দেন।টাওয়ার হ্যামলেটস্ হোমস এর সাথে মিলে কাউন্সিল এই মেলার আয়োজন করে।যারা লেখাপড়া শেষ করে কর্মসংস্থানের জন্য অপেক্ষা করছে, কিংবা যারা দীর্ঘদিন বেকার থাকার পর এখন কর্মজগতে ফিরতে আগ্রহী অথবা যারা তাদের কেরিয়ার পরিবর্তন করে নতুন পথে হাটঁতে চায়, বারার সেই সকল বাসিন্দাদের লক্ষ্য করেই আয়োজন করা হয়েছিলো এই কর্মসংস্থান মেলার।

এ প্রসঙ্গে মেয়র জন বিগস বলেন,দেশের বড় বড় নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানের কয়েকটি আমাদের এই বরাতেই অবস্থিত।তবে আমরা এটাও বুঝি যে,আমাদের বাসিন্দাদের অনেকেই চাকুরির সুযোগ নিতে পারবেন কি না সেসম্পর্কে আস্থাশীল হতে পারেননা।তাই এই ধরনের জব ফেয়ার চাকুরিদাতা ও চাকুরি প্রত্যাশিদের মধ্যে বিদ্যমান দূরত্ব কমাতে এবং সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে।আইডিয়া স্টোরের এই মেলায় এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে দেখে আমি অভিভূত।নতুন কেরিয়ার সম্পর্কে জানতে এবং চাকুরির নানা সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে তথ্য পেতে তারা সরাসরি নিয়োগদাতাদের সাথে কথা বলার সুযোগ পেয়েছেন।মেলায় ট্রান্সপোর্ট ফর

লন্ডন,এনএইচএস,লন্ডন ফায়ার ব্রিগেড, ন্যাশনাল অডিট অফিস এর মতো বড় বড় নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়।কাউন্সিলের ওয়ার্কপাথ টীমও মেলায় আগতদের চাকুরির জন্য আবেদন করা,নতুন দক্ষতা অর্জন করা এবং ইন্টারভিউয়ের জন্য প্রস্তুতিকরণ সহ নানান বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করে।কাউন্সিলের কেবিনেট মেম্বার ফর ওয়ার্ক এন্ড ইকোনোমিক গ্রোথ, কাউন্সিলর মতিন উজ্-জামান বলেন,কর্মজীবনের পা রাখতে আমাদের বাসিন্দাদের উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে কাউন্সিলের ওয়ার্কপাথ টিম অসাধারণ কাজ করে যাচ্ছে। একই সাথে তারা চাকুরি পাওয়ার ক্ষেত্রে বিদ্যমান বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ সাফল্যের সাথে মোকাবেলায়ও চাকুরিপ্রত্যাশিদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিচ্ছে।কাউন্সিলর মতিন আরো বলেন,অনেকগুলো বড় বড় প্রতিষ্ঠানের সাথেও ওয়ার্কপাথ চমৎকার সম্পর্ক গড়ে তুলেছে,যার প্রমাণ পাওয়া যায় এবারের জব ফেয়ারে তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে।আমি নিজে অনেক নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেছি এবং নতুন চাকুরি প্রত্যাশিদের সাথে মুখোমুখি কথা বলে তাদের মান সম্পর্কে তারা অভিভূত বলে আমাকে জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.