লন্ডনে তথ্য সচিব: এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায়


নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

লন্ডন: লন্ডনে “শতকণ্ঠে এগিয়ে যাওয়ার গান” শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের তথ্য সচিব আবদুল মালেক বলেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃতে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে । গত শনিবার বাংলাদেশি-ব্রিটিশদের প্রাণকেন্দ্র পূর্ব লন্ডনের এক মিলনায়তনে যুক্তরাজ্যের বঙ্গবন্ধু ’শেখ মুজিব রিসার্স সেন্টার’ ও এটিএন বাংলার উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ডঃ গওহর রিজভী ও যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন। বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মোহাম্মদ এবাদুল করিম, যুক্তরাজ্যের বিশিষ্ট রাজনীতিক স্টিফেন টিমস ও রোশনারা আলী এবং লন্ডন বারা অফ ক্রয়ডনের মেয়র হুমায়ুন কবির এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

লন্ডনসহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহর ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, গবেষক, পেশাজীবী, ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক ও সংস্কৃতিকর্মীগণ দু’ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন। এই অনুষ্ঠানে একশত বাংলাদেশি-ব্রিটিশ বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামের চিরচেনা গানগুলো নতুন করে পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আবদুল মালেক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র বিমোচন, শিক্ষা ও খাদ্য উৎপাদনের সাফল্যে বাংলাদেশ বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যকর নীতিমালা ও পদক্ষেপের ফলে বাংলাদেশে আজ অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সাংস্কৃতিক সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক অনেক বেশী সুদৃঢ়।

তথ্য সচিব বলেন, ১১ লাখেরও বেশী রোহিঙ্গাদের শুধু আশ্রয়ই নয়, প্রতিদিন তাদের খাওয়া-পরা, চিকিৎসা, নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় সব কিছু দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে মানবতার এক অনন্য নজির স্থাপন করেছে। এতবড় একটি কাজ সম্ভব হয়েছে কেবলমাত্র শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমগ্র জাতি রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিকভাবে ঐক্যবদ্ধ বলেই।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দ্রুতগতির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির দেশ হিসেবে এগিয়ে চলেছে। আমরা আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী ২০২১ সালে আমাদের দেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে একটি উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রমে যুক্তরাজ্যের জনগণ ও বাংলাদেশি-ব্রিটিশদের অতুলনীয় ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান জেল থেকে মুক্তি পেয়ে প্রথম লন্ডনেই আসেন। এটাই প্রমাণ করে যুক্তরাজ্যের সরকার ও মানুষ বিশেষ করে, প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসা কতখানি গভীর ছিল। এজন্য আগামী বছর লন্ডনসহ বিশ্বের প্রধান ১০টি শহরে বাংলাদেশের সাথে যুগপৎ জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী বিশেষভাবে পালন করা হবে। তিনি জন্মশত বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সবাইকে, বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের বাংলাদেশি-ব্রিটিশদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণের আহ্বান জানান।

এর আগে তথ্য সচিব পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রীন লাইব্রেরিতে বাংলাদেশ বইমেলা ২০১৯-এ গেস্ট অব অনার হিসেবে বক্তব্য রাখেন ও মেলায় বাংলাদেশ হাই কমিশনের বঙ্গবন্ধু কর্ণার ও অন্যান্য স্টল ঘুরে দেখেন।

যুক্তরাজ্যের সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ১৬ ও ১৭ নভেম্বর দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এ বইমেলায় মেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন ডঃ গওহর রিজভী। মেলার উদ্বোধক ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব ও বর্তমানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন সম্পর্কিত কমিটির সদস্য সচিব ডঃ কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম এতে গেস্ট অব অনার হিসেবে বক্তব্য রাখেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.