ব্রিটিশ রাজপরিবারে নজিরবিহীন টানাপোড়েন, বৈঠক ডাকলেন রানি


নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

যুক্তরাজ্যঃ রাজ পরিবারের বাইরে চলে যেতে চান রাজকুমার হ্যারি ও স্ত্রী মেগান।এরই মধ্যে তারা তাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছেন। রাজপরিবারের প্রথম সারির সদস্য পদ থেকে সরে দাঁড়িয়ে ব্রিটেনের রাজ পরিবারকে এক প্রকার হতভম্ব করে দিয়েছেন এই যুগল।গত বুধবার এক বিবৃতিতে তারা তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানান।এই বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করতে দেখা যায় তাদের।তারা রাজ পরিবারের বাইরে গিয়ে নিজেদের মতো করে চলতে চান।নাতির এই সিদ্ধান্তে যে রানি খুশি নন,তা জানিয়েছেন রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ এক সহযোগী।বিষয়টির দ্রুত নিষ্পত্তি চান ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

রাজবাড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের জরুরি তলব করেছেন রানি।কর্মকর্তারা এখন নীল-নকশা বানাতে ব্যস্ত। নকশা মূলত বিপুল সম্পত্তির হিসাব-নিকাশ নিয়ে। ব্রিটেনের প্রয়াত যুবরানি ডায়ানার ছোট ছেলে রাজকুমার হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগানের বিষয়টি নাকি তিন দিনের মধ্যে সারতে চান রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠের বরাত দিয়ে এই খবর দিয়েছে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ডেইলি টেলিগ্রাফ।উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত হ্যারির যে সম্পত্তি রয়েছে, তা নিয়েই এখন হিসেবনিকেশ শুরু হয়েছে রাজবাড়িতে। মূলত সম্পত্তি নিয়ে কথা বলতেই হ্যারি এখনও ব্রিটেনে রয়ে গেছেন বলে দাবি টেলিগ্রাফের।এদিকে, বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। বলেন, ‘হ্যারি-মেগানের এই সিদ্ধান্ত খুবই দুঃখজনক’। রানির জন্য তার কষ্ট হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন ট্রাম্প।

প্রসঙ্গত, গত বছরের মে মাসে হ্যারি ও মেগানের পুত্র আর্চির জন্মের পর থেকেই শোনা যাচ্ছিল তারা রাজ পরিবার থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন। শুধু তাই নয়, গত বছর বড়দিনের ছুটিও তারা যুক্তরাষ্ট্রের বদলে কানাডায় কাটান৷ দুই মহাদেশে সময় কাটানোর বিষয়ে তারা জানান, ‘এই ব্যবস্থা আমাদের সন্তানকে রাজকীয় পরম্পরার সঙ্গে বেড়ে ওঠার সুযোগ দেবে৷ পাশাপাশি, আমাদের পরিবারকে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা ব্যক্তি স্বাধীনতাও দেবে৷’বাকিংহাম প্যালেস থেকে প্রকাশিত তাদের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, রাজপরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যের পদ থেকে আমরা সরে আসার ইচ্ছা প্রকাশ করছি কারণ আমরা অর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন হয়ে কাজ করতে চাই। চলতি বছরকে আমরা একটি ক্রান্তিকাল হিসেবে বেছে নিয়েছি। কাজেই উত্তর আমেরিকা ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে আমাদের সময়ের একটি ভারসাম্য নির্ধারণের পরিকল্পনা করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.