ছেড়ে কথা বলবে না চীন


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

তাইওয়ান নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের উসকানিমূলক বক্তব্যের মুখেও চীন স্থির থেকেছে। কিন্তু ক্ষমতা গ্রহণের পরও তিনি যদি তা অব্যাহত রাখেন, তবে ছেড়ে কথা বলবে না চীন।চীনের ইংরেজি ভাষার রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র চায়না ডেইলি সোমবার যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ার করে এসব লিখেছে।

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েনের সঙ্গে সরাসরি টেলিফোনে কথা বলে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের কূটনৈতিক নীতি ভেঙেছেন ট্রাম্প। চীনের ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলে যুক্তরাষ্ট্র। এক চীন নীতি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্র স্বীকার করে তাইওয়ান চীনের অংশ।শুক্রবার প্রকাশিত ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, ‘এক চীন নীতি’ সমঝোতার ওপর দাঁড়িয়ে আছে। এর প্রতিক্রিয়ায় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের সম্পর্কের ভিত্তি ‘এক চীন নীতি’, এটি সমঝোতার বিষয় নয়।

চায়না ডেইলি ট্রাম্পকে হুঁশিয়ার করেছে, ‘ক্ষমতা গ্রহণের পর এই ইস্যুতে যদি তিনি মাথা ঘামান, তবে পরিস্থিতি বেসামাল হয়ে যাবে এবং সম্পর্কের অবনতি এড়ানো সম্ভব হবে না। তখন খাপ মুক্ত হওয়া ছাড়া বেইজিংয়ের কোনো উপায় থাকবে না।’১৯৭৯ সালে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ‘এক চীন নীতি’-এর আলোকে একটি কূটনৈতিক চুক্তি হয়। সেই চুক্তি অনুযায়ী, তাইপে থেকে বেইজিং- সবই চীনের অংশ। অর্থাৎ তাইওয়ান কোনো আলাদা রাষ্ট্র নয়, চীনের অধীনে একটি প্রদেশমাত্র।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *