‘প্রবাসে বেড়ে ওঠা মেধাবী প্রজন্ম থেকে জ্ঞান আহরণ করতে চাই’


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

বার্মিংহাম প্রতিনিধি
সত্যবাণী

বার্মিংহাম থেকে: ব্রিটেনে শিক্ষাদীক্ষায় নতুন প্রজন্মের সাম্প্রতিক সাফল্যে সন্তোষ প্রকাশ করে জালালাবাদ এসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক ও অব: যুগ্ম সচিব সৈয়দ জগলুল পাশা বলেছেন, ‘আমার প্রজন্ম নয়, ব্রিটেনে আসলে আমি এখন এখানে জন্ম ও বেড়ে ওঠা এই প্রজন্মের সাথে মতবিনিময়ে আগ্রহী। আমি তাদের কাছ থেকে জ্ঞান আহরণ করতে চাই, জানতে চাই পুরো বিশ্বকে কেমন করে তারা হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে’।

IMG_5872তিনি বলেন, ‘আজকের এই বিশ্বায়নের যুগে প্রবাসে গড়ে ওঠা আমাদের এই মেধাবী প্রজন্মকে বাংলাদেশের কাজে লাগাতে হবে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকারেরই উদ্যোগ নেয়া উচিত। আমরা চাই গ্লোবাল জব মার্কেটের পাশাপাশি বাংলাদেশের জব মার্কেটের প্রতিও প্রবাসী এই প্রজন্ম আগ্রহী হোক’। অনিয়ম বা হয়রানী ইত্যাদি কারনে রাষ্ট্রের প্রতি অভিমান হলেও বর্তমান বা অনাগত প্রজন্ম যেন শিকড় বিচ্ছিন্ন না হয়, সেদিকে সচেতন থাকার জন্য প্রবাসী স্বজনদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

IMG_5920ব্রিটেনের বার্মিংহামে তাঁর সম্মানে আয়োজিত নিজ গ্রামবাসীর সংগঠন সৈয়দপুর শামসিয়া সমিতি আয়োজিত এক মত বিনিময় সভায় উপরোক্ত মন্তব্য করেন সৈয়দ জগলুল পাশা।
মঙ্গলবার রাতে কভেন্ট্রি রোডের মিষ্টিদেশ রেষ্টুরেন্টে বার্মিংহাম শামসিয়া সমিতির অন্যতম সংগঠক সৈয়দ সেলিনের সভাপতিত্বে এবং সৈয়দ কফিল আহমেদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভায় দেশে গেলে বিমান বন্দরে হয়রানী, জায়গা জমি নিয়ে সমস্যা ইত্যাদি বিষয়ে স্বজনদের কেউ কেউ তাঁর দৃষ্টি আকর্ষন করলে জালালাবাদ এসোসিয়েশন সেক্রেটারী বলেন, ‘শত অনিয়ম ও কষ্টের অভিজ্ঞতা থাকলেও মাতৃভূমিকে ত্যাগ করা যাবেনা’। তিনি বলেন, ‘মডার্ণ বিশ্বের মত সুযোগ সুবিধা আমাদের দেশের নাগরিকরা হয়তো এখনও পাচ্ছেন না, তবে চেষ্টা থেমে নেই, সরকারী-বেসরকারী উদ্যোগে চেষ্টা চলছে, সময়ই ঐ সুযোগ- সুবিধা নিয়ে আসবে আমাদের জন্য’। জগলুল পাশা বলেন, মায়ের প্রতি অভিমান করা যায়, কিন্তু তাঁর সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করা যায়না।’। এখানে বেড়ে ওঠা মেধাবী প্রজন্মের শিকড় সংযোগ সৃষ্টির উপর গুরুত্বারোপ করে সৈয়দ জগলুল পাশা বলেন, ‘দেশের প্রতি মা-বাবার অভিমান সন্তানদের মধ্যে যেন শিকড় বিমূখতার জন্ম না দেয়, এটি আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে’। দেশে সন্তানদের জন্ম নিবন্ধন ও বাংলাদেশী পাসপোর্ট আপগ্রেড রাখার পরামর্শ দিয়ে আইডি কার্ড ও দেশের ব্যাংক একাউন্টও সক্রিয় রাখার পরামর্শ দেন তিনি।
IMG_5918দেশের উন্নয়ন, ব্যবসা বিনিয়োগে প্রবাসীদের অংশগ্রহন ও সহযোগিতা আহবান করে জালালাবাদ এসোসিয়েশন সেক্রেটারী বলেন, এক্ষেত্রে সরকারী সব মেকানিজম তৈরীই আছে, আমাদের শুধু এটি খুজে নিতে হবে।
জালালাবাদ এসোসিয়েশন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সিলেটিদের মধ্যে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করছে এমনটি জানিয়ে সৈয়দ জগলুল পাশা বলেন, ‘আমাদের গৌরবোজ্জল ইতিহাস, ঐতিহ্যের সাথে বর্তমান ও অনাগত প্রজন্মের প্রাণের বন্ধন সৃষ্টির লক্ষ্যেই কাজ করছি আমরা’। সিলেট, ঢাকা, কলকাতা ও আমেরিকায় অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল সিলেট উৎসব অনুষ্ঠানের কথা জানিয়ে এক বছরের মধ্যে ব্রিটেনেও এটি অনুষ্ঠিত হবে এমনটি জানান তিনি। এসব উদ্যোগে সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রবীন মুরুব্বী সৈয়দ আব্দুর রউফ, সৈয়দ আলী হাসান, সৈয়দ আলী হোসেইন, সৈয়দ নাসির আহমেদ, সৈয়দ রিয়াদ, সৈয়দ সাহেল, সৈয়দ শাহরিয়ার ও সৈয়দ কিবরিয়া প্রমূখ।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *