নতুন প্রজন্মকে দেশমুখী করতে চায় বিবিসিসি


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশন ২১-২৭ অক্টোবর

বিজনেস করেসপন্ডেন্ট
সত্যবাণী

লন্ডন: দেশের বাইরে জন্ম ও বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মকে দেশমুখি করার লক্ষ্য সামনে রেখেই প্রথমবারের মত বাংলাদেশে এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশন করার উদ্যোগ নিয়েছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স (বি বি সি সি)।
সোমবার ২রা অক্টোবর পূর্ব লন্ডনের একটি রেষ্টুরেন্টে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটিই জানান বিবিসিসি কর্মকর্তারা।
আগামী ২১ থেকে ২৭ অক্টোবর সিলেটে আয়োজিত এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশনের প্রস্তুতি সম্পর্কে অবহিত করতে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রেসিডেন্ট ব্রিটিশ কারী এওয়ার্ডের প্রতিষ্ঠাতা এনাম আলী এমবিই। অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিবিসিসি’র সিনিয়র উপদেষ্টা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বক্ত ফারুক, ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর মনির আহমেদ, লন্ডন রিজিওন প্রেসিডেন্ট বশির আহমেদ, মেম্বারশীপ সেক্রেটারী সুরকুম খালেদ আহমেদ, ইন্টারন্যাশনাল রিলেশন্সশীপ সেক্রেটারী আবুল হায়াৎ নুরুজ্জামান, কমিউনিটি এফেয়ার্স সেক্রেটারী ডক্টর সানাওয়ার চৌধুরী, ডেপুটি ডাইরেক্টর জেনারেল হেলাল খান, ডাইরেক্টর মোহাইমিন মিয়া, ডাইরেক্টর শফিকুল ইসলাম, ডাইরেক্টর আব্দুল মুমিন ও কমিউনিটি নেতা আলা উদ্দিন প্রমুখ।
CFE8A9B0-D72A-45D4-B9F5-7F5A0A91DC1Eসিলেটকে সম্মেলনের ভেন্যু হিসেবে বেছে নেয়ার কারন ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বিবিসিসি প্রেসিডেন্ট এনাম আলী বলেন, ‘ইতিহাস সাক্ষি, সিলেটের প্রবাসীরাই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা আজকের বিশাল ‘এনআরবি’ জনগোষ্ঠির গোড়া পত্তনের মূল কারিগর। যে পূর্ব প্রজন্মের শ্রম ও ঘামের বিনিময়ে প্রতিষ্ঠিত আজকের এই সমৃদ্ধ এনআরবি কমিউনিটি, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেই সিলেটকে আমরা কনভেনশনের ভেন্যু হিসেবে বেছে নিয়েছি’। তিনি বলেন, ‘আমাদের পূর্ব পুরুষরা এ দেশে এসে আমাদেরকে বিশ্বময় পরিচয় করে দিয়েছেন, আমরা তাদের উত্তরসূরী হিসেবে গর্ব করে বলছি আমরা প্রবাসী’। দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘এনআরবি ক্যাপিটাল সিলেটের এবারের প্রথম কনভেনশন হবে ইতিহাসের একটি অংশ’।

কনভেনশনের সার্বিক প্রস্তুতি জানাতে গিয়ে এনাম আলী এমবিই বলেন, ‘এই সম্মেলন বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম সম্মেলন, ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স  প্রথম আয়োজক’। ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশের এনআরবি ব্যবসায়ীরা তাদের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছেন জানিয়ে কনভেনশনে শতাধিক ডেলিগেট অংশ নেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন বিবিসিসি প্রেসিডেন্ট।

সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করে এনাম আলী বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের বাংলাদেশিরা এই কনভেনশনের মাধ্যমে যাতে উৎসাহিত হয় সে জন্য আমরা মিডিয়ার সহযোগিতা চাই’। এনআরবি’র আজকের প্রজন্ম শিকড় বিমূখ হয়ে যাচ্ছে, এমন মন্তব্য করে বিবিসিসি
প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশে উপযুক্ত পরিবেশ নেই, এমন একটি ধারণা এই প্রজন্মের মধ্যে ঢুকে পড়েছে যা আমাদের উদ্বিগ্ন না করে পারেনা’। উপযুক্ত প্রতিনিধিত্ব, সঠিক আইডিয়ার অভাব ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বিভ্রান্তিকর চিত্র তুলে ধরার কারণেই এনআরবি’র বর্তমান প্রজন্মের এই বাংলাদেশ বিমূখতা বলে মন্তব্য করেন এনাম আলী। তার মতে, এ ধারা চলতে থাকলে বাংলাদেশের সাথে যে ‘জেনারেশন গেপ’ সৃষ্টি হবে তাতে বাংলাদেশ হারাবে অর্থনৈতিক ভাবে বিশাল সম্ভাবনার একটি ক্ষেত্র।
বিবিসিসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশন এর মাধ্যমে বিবিসিসি ব্রিটেনে বেড়ে উঠা আমাদের নতুন প্রজন্মের সামনে বাংলাদেশকে ভিন্ন আঙ্গিকে উপস্থাপন করতে চায়, সেতুবন্ধন সৃষ্টি করতে চায় বাংলাদেশ ও ভবিষ্যত এনআরবি প্রজন্মের’।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্য চেম্বার নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘জীবন-জীবিকার প্রয়াজনে জন্ম মাটি ছেড়ে থাকলেও প্রবাসীদের মন সব সময় পড়ে থাকে দেশে, আমাদের সব স্বপ্ন দেশকে ঘিরেই হয় আবর্তিত’। তারা বলেন, ‘আমাদের সন্তানরা যখন দেখে তাদের পিতা-মাতা দেশের জন্য সব দিতে প্রস্তুত থাকার পরও দেশ থেকে উপযুক্ত মর্যাদা পাচ্ছেননা, বঞ্চিত হচ্ছেন, তখনই তারা দেশ বিমূখ হয়ে উঠে।জাতী হিসেবে এটি আমাদের জন্য শুভ নয়’।

ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর মনির আহমেদ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমরা এনআরবি ব্যবসায়ীরা দুটি দেশের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছি। সে হিসেবে আমাদের অবশ্যই দেশের কাছে আলাদা চাওয়া-পাওয়ার অনেক কিছু আছে। আমরা প্রবাসী ব্যবসায়ী হিসেবে আমাদের ন্যায্য অধিকার চাই’। সরকার এনআরবি ব্যবসায়ীদের অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি মর্যাদা দিচ্ছে, এমনটি স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমরা মনেকরি কনভেনশনটির জন্য উপযুক্ত সময় এখনই। দেশ নিয়ে নতুন প্রজন্মের নেতিবাচক ধারণা ভেঙ্গে দিতে এখনই প্রয়োজন এমন উদ্যোগ’।

বিবিসিসি’র সিনিয়র উপদেষ্টা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বক্ত ফারুক বলেন, ‘এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশন ২০১৭ এনআরবিদের জন্য একটি মর্যাদার বিষয়। সেই মর্যাদাপূর্ণ আয়োজনের গর্বিত আয়োজক হতে পেরে বিবিসিসি আনন্দিত’। তিনি আন্তর্জাতিক এ কনভেনশন বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

লন্ডন রিজিওন প্রেসিডেন্ট বশির আহমেদ বলেন, ‘এনআরবি গ্লোবাল কনভেনশন বাংলাদেশকে অনেক উচ্চমাত্রায় পৌঁছে দেবে’ এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা’।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *