প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে উদীচী’র দীর্ঘ পথচলার গল্প


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

চলছিতো অবিরাম মানুষের মিছিলে, লড়ছি তো মুক্তির শপথে’

নিলুফা ইয়াসমীন
বার্তা সম্পাদক, সত্যবাণী

লন্ডন: ‘চলছিতো অবিরাম মানুষের মিছিলে, লড়ছি তো মুক্তির শপথে’ শ্লোগানকে ধারণ করে প্রতিষ্ঠার ৫০ বছরে পা দিলো ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী শিল্পগোষ্ঠী। ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এবং সুবর্ণজয়ন্তীতে পদার্পন উপলক্ষে গত রোববার বাংলাদেশ উদীচী শিল্পগোষ্ঠী যুক্তরাজ্য সংসদ আয়োজন করে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালা।
গানে, কবিতায়, বক্তব্যে তুলে ধরা হয় উদীচীর দীর্ঘ পথ চলার গল্প। উঠে এসেছে ৪৯ বছরের আন্দোলন সংগামের অর্জনের কথা। ১৯৬৮ সালের ২৯ অক্টোবর জন্ম নেয় প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী শিল্পগোষ্ঠী। যেখানে নতুন নতুন সংগঠন জন্ম নিয়ে আবার কিছুদিন পরই হারিয়ে যায়, সেখানে উদীচী নির্দিষ্ট লক্ষ্য সামনে রেখে দীর্ঘ পথ পেরিয়ে এসেছে। দেশের সীমানা ছাড়িয়ে প্রবাসেও উদীচী বাঙালীর সংস্কৃতি তুলে ধরেছে।
পূর্ব লন্ডনের নজরুল সেন্টারে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে সভাপতি হারুনুর রশীদের সভাপতিত্বে সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক সাহাব আহমেদ বাচ্চু। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাংবাদিক সাঈম চৌধুরী। তিনি বিলেতে উদীচীর মত প্রগতিশীল সংগঠনের প্রয়োজনীয়তা ও কার্যকারিতা চমৎকারভাবে তুলে ধরেন। আলোচনায় অংশ নেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পীকার সাবিনা আক্তার। তিনি ছোট বেলায় বাবার হাত ধরে উদীচীর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আসতেন স্মরণ করে উদীচীর অর্ধশত বছর উদযাপনের প্রাক্ষালে উপস্থিত হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করেন। উদীচীকে সব রকম সহযোগিতার আশ্বাস দেন সাবিনা আক্তার। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য উদীচীর উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ডা. রফিকুল হাসান খান, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মাহমুদ এ রউফ, সাংবাদিক আবু মুসা হাসান ও হামিদ মোহাম্মদ, ওলিউর রহমান ও টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাবেক কাউন্সিলর মতিনউজ্জামান।
সভায় বক্তারা স্মরণ করেন, ‘৬৮ সালে পুরনো ঢাকার নারিন্দায় সত্যেন সেনসহ কয়েকজন তরুণ মিলে করা সেই সভাটির কথা, যেখানে উদীচী গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছিল। বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নানা দুর্যোগে, সংকটে, স্বৈরাচার ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী আন্দোলনসহ জনগণের দাবী আদায়ের সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে  উদীচী যুগে যুগে রাজপথে থেকেছে উল্লেখ করে বক্তারা আগামীতেও মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে সংগঠনটি পাশে থাকবে এমন প্রত্যাশা রাখেন।
সাংস্কৃতিক পর্বে ডা. হাসনিন চৌধুরী ও সাহাব আহমেদ বাচ্চুর ধারা বর্ণনায় গানে কবিতায় অংশগ্রহণ করেন ইভা আহমেদ, রাজিয়া রহমান, জালাল উদ্দিন, শম্পা কুন্ডু, সনি ইসলাম, নাসিমা কাজল ও মতিউর তাজ। নৃত্য পরিবেশন করে শিশু শিল্পী নিঝুম দে, তবলায় ছিলেন বিজয় কুন্ডু।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *