আমি সদুত্তর দিতে পারিনি


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Ruhul Quddus Babul  রুহুল কুদ্দুস বাবুল

১৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যা দাদার সাথে কাটালাম। আমার বড়ভাই আব্দুল মতিন। অবসরপ্রাপ্ত যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক। অত্যন্ত সাদা মনের মানুষ। আমরা চারভাই, তিন বোনের সবার বড়। যথেষ্ট পড়াশোনা করেন। কথা হলো দীর্ঘ সময়। যেহেতু ডিসেম্বর মাস, মুক্তিযুদ্ধ চলে আসলো আলোচনায়, অনেকটা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন।
দীর্ঘ স্মৃতিচারণ। একমাত্র আমি মুগ্ধ শ্রোতা। এ সুযোগে কয়েকটি ছবি উঠিয়ে নিলাম তাঁর অজ্ঞ্যাতসারে।
তাঁর লম্বা স্মৃতিচারনে উঠে আসলো ৭০ এর নির্বাচন, তখন তিনি মদন মোহন কলেজের ছাত্র। আমাদের চাচাতো ভাই মোখলেসুর রহমান তখনকার ছাত্রলীগ নেতা, তার সাথে কর্ণেল ওসমানির নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন। উত্তাল মার্চের কথা বললেন। বললেন মুক্তিযুদ্ধ শুরুর কথা, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষনের কথা।
২৫ মার্চের পর পালিয়ে বেড়ানো ও গহরপুরে রাজাকারদের অত্যাচারের কথাও বললেন। সিলেট ও বালাগঞ্জে শান্তি কমিটিতে কারা ছিল তাও বললেন। বুরুঙ্গা, আদিত্যপুর, শ্রীরামসির গণহত্যার কথা বলে আমার কাছে জানতে চাইলেন এসব হত্যাকাণ্ডের বিচারে যুদ্ধাপরাধ প্রসিকিউশন কোন তদন্ত করছে কিনা।

99968227-DEF3-40D6-B5CB-01F750C18B9Aআমি সদুত্তর দিতে পারিনি।
মৌলভী বাজারে কয়েকটা যুদ্ধাপরাধী বিচারের আওতায় এসেছে সেজন্য তিনি খুশি। কারন মৌলভী বাজারের মনু নদীর ব্রীজের উপর তিনজন লোককে নির্মমভাবে হত্যা করে নদীতে লাশ ফেলে দিয়েছিল হানাদার বাহিনি, সে নির্মম ঘটনা তিনি প্রত্যক্ষ করেছেন। সময়টা ছিল সম্ভবত মে মাস, তিনি আমার দুলাভাই মাদারিস আহমেদ বাইসাইকেলে যাচ্ছিলেন কমল গঞ্জের মুন্সিবাজার। মনুব্রীজ পার হওয়ার সময় তাদের সেখানে আটকে দেয়। ব্রীজের রেলিং ঘেষে শতাধিক মানুষকে তারা দুজনসহ লাইন করে দাড় করায়, তারা ভেবেছিলেন তাদের মেরে ফেলা হবে। দীর্ঘক্ষন পর একটি জীপ আসে, পিছনে হাত ও চোখ বাঁধা অবস্থায় তিনজন লোককে জীপ থেকে নামিয়ে গুলি করে নদীতে ফেলে দেয়, তাদের একজনের নাম ছিল উস্তার মিয়া,বাকি দুজনের নাম স্মরণ করতে পারেননি। ঐ তিনজনকে হত্যার পর আটকে রাখা লোকজনকে পরিণতির কথা স্মরণ করিয়ে ছেড়ে দেয়। তাঁরা সেদিন বেচে যান।
অবলিলায় অনেক তথ্য দিয়েছেন, আমার ভাণ্ডারে জমা থাকলো। সময় সুযোগ হলে লিখবো।
আমার দাদার সু্স্থ ও দীর্ঘজীবন কামনা করি।

রুহুল কুদ্দুস বাবুল: রাজনীতিক, ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে সিলেট জেলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের অন্যতম নেতা।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *