কলকাতা বই মেলায় হবে বাংলাদেশ দিবস


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, সত্যবাণী

কলকাতা থেকে: কাঁটাতারের ওপারের সাহিত্য সংস্কৃতি তুলে ধরতে কলকাতা বই মেলায় এই প্রথম বাংলাদেশ দিবস হবে। সোমবার কলকাতায় অবস্থিত বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের পক্ষ থেকে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এই ঘোষণা দেয় উপদূতাবাস। মূলত বাংলাদেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি, ইতিহাস সম্পর্কে পরিচয় করানোর উদ্দেশ্য নিয়েই ৩ ফেব্রুয়ারি এই দিনটি পালন করা হবে বলে জানানো হয়েছে।বাংলাদেশ দিবসে বই মেলার প্রাঙ্গণের স্টেট ব্যাংক অডিটোরিয়ামে
‘সাহিত্যে মুক্তি যুদ্ধ’ বিষয়ে সেমিনার হবে।
উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মেহের আফরোজ চুমকি, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ এমপি,
রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন বলে দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এছাড়াও ওইদিন দুই বাংলার লেখক-শিল্পীদের উপস্থিত থাকার কথা।
2B8F073D-9C62-4C11-8A8A-B1A6330BE1A4কিন্তু কেন এই বাংলাদেশ দিবস? মিলন মেলার পরিবর্তে সল্টলেক সেন্ট্রালপার্কে মেলা হওয়াতে কোনও সমস্যা হয়েছে? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ দূতাবাসের উপহাইকমিশনার তৌফিক হাসান বলেন,”আগে মিলন মেলা হতো কিন্তু শুনেছি এখানে স্থান ছোট। তবে প্রতিবার যে জায়গা দেওয়া হতো সেই পরিমাণ জায়গা দিয়েছে সরকার। তবে আমরা চেষ্টা করছি কিভাবে বাংলাদেশকে এখানে পরিচয় করানো যায়।পশ্চিমবঙ্গের লেখক, শিল্পীদের আমরা জানি, কিন্তু বাংলাদেশের সাহিত্যিকদের এখানে এনে পরিচয় করাতে হয়।”
এদিকে ৪২তম আন্তর্জাতিক পুস্তক মেলায় এই বছর বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে ৪২টি স্টল থাকছে।
সরকারি স্টলগুলোর মধ্যে বাংলা একাডেমি, নজরুল ইনস্টিটিউট, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান স্মৃতি সংসদ, বাংলাদেশ ইসলামীক ফাউন্ডেশন, জাদুঘর উল্লেখযোগ্য।
তৌফিক হাসান জানান,”বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালায়ের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সহযোগিতায় এবং কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের ব্যবস্থাপনায় এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করছে।”
এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় গ্রন্থ কেন্দ্রের পরিচালক নজরুল ইসলাম, প্রেস সচিব মুফাক্কারুল ইকবাল, জামাল হোসেন প্রমুখ।
নজরুল ইসলাম বলেন,”আমরা ভারতের বন্ধু প্রতিম দেশ বলে এই মেলা আমাদের কাছে অন্য রকম গুরুত্ব বহন করে।”

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *