ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে ৪টি গ্রাম অপরাধমুক্ত এলাকা ঘোষণা


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, সত্যবাণী

কলকাতা থেকে: ভারত বাংলাদেশের সীমান্তে অপরাধ, পাচার ও অনুপ্রবেশ রুখতে আনুষ্ঠানিক ভাবে অপরাধমুক্ত এলাকা ঘোষণা হল উত্তর ২৪ পরগনার পেট্রাপোল সীমান্তের ভারত ও বাংলাদেশের চারটি গ্রাম। শুক্রবার এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দুই দেশের বিএসএফ-বিজিবি ডিজি সহ প্রশাসনিকের আধিকারিরা।

288F7637-A4DA-49D2-A565-666D62564D03পেট্রাপোল ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের কালিয়ানী এলাকার কাছে ৮ দশমিক ৩ কিলোমিটার এলাকা দেশের প্রথম অপরাধমুক্ত অঞ্চল হিসাবে চিহ্নিত হতে চলেছে। বিএসএফ এবং বর্ডার গার্ডস বাংলাদেশের মহানির্দেশকদ্বয় এই অপরাধ মুক্ত অঞ্চলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। বিএসএফ সূত্রে খবর, গত বছরের অক্টোবরে দুদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী উত্তর ২৪ পরগণায় ভারতের দিকের কালিয়ানী ও ঘুনারমাঠ এবং অন্যদিকে বাংলাদেশের পুটখালি ও দৌলতপুর গ্রামের মোট ৮ দশমিক ৩ কিলোমিটার এলাকাকে অপরাধমুক্ত অঞ্চল হিসাবে চিহ্নিত করা হয় । যে অঞ্চলে কোন চোরাচালান বা সমাজবিরোধী কার্যকলাপ থাকবে না। এটা নিশ্চিত করা হবে দুদেশের যৌথ প্রচেষ্টায়। সেই অনুযায়ী শুক্রবার বেলা সাড়ে ১২ টায় সেখানে বিএসএফের মহানির্দেশক কেকে শর্মা এবং বিজিবির মহানির্দেশক মেজর জেনারেল আবুল হোসেনের উপস্থিতিতে নতুন অপরাধমুক্ত অঞ্চলের সূচনা করা হয় ।

6D589C16-F341-48B3-80EE-CD815B83F7D6বিএসএফের ডিজি কে কে শর্মা ও বিজিবির ডিজি মেজর জেনারেল আবুল হোসেন বলেন, দুদেশের মধ্যে অপরাধ রুখতে প্রথম এধরনের উদ্যোগ নেওয়া হল যা পুরোপুরি সফল হলে এই পাইলট প্রজেক্ট সারা বিশ্বেও সমাদৃত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন দুদেশের ডিজি। আগামী দিনে শুধু দুদেশের চারটি গ্রামই নয় ভারত বাংলাদেশ সীমান্তের প্রতিটি এলাকায় এই প্রজেক্ট চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন। সীমান্তে অপরাধ, পাচার ও অনুপ্রবেশ রুখতে একটি ড্রোন ক্যামেরায় ২৪ ঘন্টা নজরদারী চালানোর চিন্তা ভাবনাও করছে দুদেশের সীমান্ত সুরক্ষাবাহিনী ।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *