কলকাতায় বঙ্গবন্ধুর ৯৯তম জন্মদিন পালন


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, সত্যবাণী

কলকাতা থেকে: কলকাতায় শনিবার গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে পালিত হয়েছে বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বপ্নদ্রষ্টা বাংলাদেশের জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস।

এদিন সকাল ১০টায় কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত কলকাতার বেকার হস্টেলের ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি কক্ষে’ বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। স্মৃতি কক্ষের বাইরে রাখা বঙ্গবন্ধুর আবক্ষ মুর্তিতে প্রথমে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান উপহাইকমিশনার তৌফিক হাসান ও বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের কর্মকর্তারা।
এরপর ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সমিতি, বাংলাদেশ বিমান ও কলকাতার সোনালী ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপহাইকমিশনের বিভিন্ন বিভাগীয় কর্মকর্তাগন ও তাদের পরিবার ও শিশুরা। এসময় মওলানা আলহাজ্ব শেখ আবুল হাশেম  বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের নিহত সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন।
জন্মদিন উপলক্ষে উপ-হাইকমিশনের তরফে দিনব্যাপী একগুচ্ছ কর্মসূচী নেওয়া হয়। বিকালে একটি অঙ্কণ প্রতিযোগিতার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর পাশাপাশি শিশু ও কিশোরদের নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।
উল্লেখ্য, ১৯৪৫ থেকে ৪৭ সাল পর্যন্ত কলকাতার ইসলামিয়া কলেজে পড়াকালীন বেকার হস্টেলের ২৪ নম্বর কক্ষে থাকতেন বঙ্গবন্ধু। এই সময় তিনি ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদকও হয়েছিলেন। তাঁর এই স্মৃতিকে অম্লান রাখতে বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধে সাবেক বামফ্রন্ট সরকার ১৯৯৮ সালে তার ব্যবহ্রত ২৪ নম্বর কক্ষসহ ২৩ নম্বর কক্ষটি সংরক্ষন করে। ঐ বছরই ৩১ জুলাই তৎকালীন উপহাইকমিশনার শেখ আহমেদ জালাল ও রাজ্যের সাবেক উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী অধ্যাপক সত্যসাধন চক্রবর্তী কক্ষটির উদ্বোধন করেন। বিগত বিএনপি সরকারের আমলে এই কক্ষটি দীর্ঘদিন অব্যবহ্রত অবস্থায় থাকে। অবশেষে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ এর ১৭ মার্চে এই কক্ষটি খুলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান সাবেক উপহাইকমিশনার মাসুদ মুহম্মদ খোন্দকার। এরপরই এই কক্ষ দুটিকে ঘিরে গ্রন্থাগার ও যাদুঘরের পরিকল্পনা করা হয়। সেই পরিকল্পনা মোতাবেক ২০১২ সালে ২৩ ফেব্রুয়ারি এই কক্ষের বাইরে বঙ্গবন্ধুর আবক্ষ মুর্তির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এদিন তিনি বেকার হোস্টেলের নবনির্মিত একটি ভবন বঙ্গবন্ধুর নামে উদ্বোধন করেন। এর পাশাপাশি গ্রন্থাগার ও যাদুঘরটির উদ্ধোধন হয়। এই গ্রন্থাগারে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কিত বিভিন্ন বই ও যাদুঘরে তাঁর ব্যবহ্রত শয্যা, চেয়ার, কলম ও কোট সংরক্ষন করা হয়েছে।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *