সামাজিক অবক্ষয় রুখতে হবে মানুষকেই


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Ruhul Quddus Babul রুহুল কুদ্দুস বাবুল
ধর্ষন,ধর্ষনের পর হত্যা, ধর্ষিতার ক্ষত বিক্ষত লাশ, এমনি একটা খবর বাসি হতে না হতেই আরেকটা। খুন,ছিনতাই, রাহাজানি, ব্যাংক লুট, জনগণের সম্পদ লুট, লুটের টাকা বিদেশে পাচার এসব তো আছেই। আমরা কোথায় আছি ? এ কোন মানব সমাজ যাকে আমার চিনতে কষ্ট হয় ! দেশে আইন আছে, আইন প্রয়োগের প্রতিষ্ঠান আছে, লোকবল আছে, সরকার আছে, মানবিক বোধ সম্পন্ন ব্যাপক মানুষও আছে ! ধর্ম আছে, বিভিন্ন ইজম আছে। কিন্তু free for evrybody and all এ অবস্থা কেন ?
অবস্থা দৃষ্টে মনে হয় সরকারের সমান্তরাল আরেকটি ক্রিমিনাল সরকার বিদ্যমান, যা দৃষ্টিসীমার বাইরে তার হাত পা নাড়া চাড়া করছে। আজ জনমনে প্রশ্ন আসা স্বাভাবিক এ অবস্থার জন্য দায়ি কে? সরকারি যন্ত্রের ব্যর্থতা, নাকি আরও গভীর সামাজিক রাজনৈতিক কারণ, নাকি দেশে কোন ভয়াবহ অবস্থা সৃস্টি করার পায়তারায় লিপ্ত কোন অন্ধকারের শক্তি ? নাকি বিদ্যমান সমাজ ব্যবস্থা ?
এভাবেও ভাবনা আসে সাম্প্রতিক কালে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনার বিচার তো দূরে থাক অপরাধিরাই রয়ে গেছে ধরা ছুঁয়ার বাইরে। ক্রমিনালরা পেয়ে যাচ্ছে নেতৃত্ব। লুটেরাদের করা হচ্ছে ক্ষমতাবান। নস্ট, ভ্রস্টরা ওয়াজ নসিহত করে বেড়াচ্ছে। সব কিছুই নস্টদের কব্জায়। মানুষ অসহায়, নিরাপত্তাহীন। লোকদেখানো কিছু ধর পাকড়, বিচার শাস্তি হলেও সেটা হয় চিকন আলিদের, মোটা আলিরা পার পেয়ে যায় কিংবা ধরা ছুঁয়ার বাইরে থাকে আরও অধিক মোটা আলির জোরে। এ অবস্থা মানুষের সমাজ বরদাসত করবে না অতিতে করেও নাই।
মানুষের মধ্যে পশুত্ব যেমন আছে, মনুষ্যত্বও তেমনি রয়েছে। মনুষ্যত্বের এমন অবক্ষয় মানুষ মেনে নিতে পারেনা।
এখন মানুষের দায়িত্ব সমাজে মনুষ্যত্বকে জাগিয়ে তোলা। পশুত্বকে রুখে দেয়া, নির্মুল করা। এ দায়িত্ব মানুষকেই নিতে হবে, কোন পশু নেবে না।

লেখক: রাজনীতিক, সাবেক ছাত্রনেতা

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *