পূর্ব লন্ডনে কাউন্সিলার প্রার্থীর উপর হামলার ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন: হত্যার উদ্দেশ্যই হামলা


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

লন্ডনঃ টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নবগঠিত এস্পায়ার পার্টি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন এর উপর হামলার ঘটনা কমিউনিটিকে অবহিত করতে এস্পায়ার পার্টির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।শনিবার বিকালে পূর্ব লন্ডনের একটি হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে হামলার শিকার কাউন্সিলার প্রার্থী বলেন,নির্বাচনী প্রচারনার কাজ থেকে বিরত রাখতে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এই হামলা হয়েছে।আল্লাহ সহায় আমি বেঁচে গেছি।যেভাবে আমার মাথায় আঘাত করা হয়েছে আমার মনে হয়েছে আমি মারা যাচ্ছি।সংবাদ সম্মেলনে এস্পায়ার পার্টির মেয়র প্রার্থী অহিদ আহমদসহ প্রায় সকল কাউন্সিলার প্রার্থীগন উপস্থিত ছিলেন।এসময় তারা বলেন,কোন ভয়ভীতি দেখিয়ে লাভ হবে না।জনগন আমাদের সাথে আছে।আগামী ৩ মে জনগনের তাদের রায়ের মাধ্যমে এর জবাব দিবে।তারা অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ তৈরী করতে নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের প্রতি আহবান জানান।সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় এই ঘটনা বর্তমানে পুলিশ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।হামলা পর থেকে তাদের দলের প্রার্থীরা বিশেষ করে মহিলা প্রার্থীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন বলে জানান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলায় টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নবগঠিত এস্পায়ের সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন শুক্রবার বিকাল ৬ ঘটিকায় তার নির্বাচনী এলাকা ওয়াপিংয়ের রিয়াডন হাউজে নির্বাচনী প্রচার কাজের জন্য গেলে সেখানে পেছন দিক থেকে আঘাত করলে তিনি মারাত্মক আহত হন।পরে তিনি পুলিশ ও এ্যাম্বুলেন্স কল করলে তারা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে। সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয় ঐ প্রার্থীকে গত দুই সাপ্তাহ আগে ওয়াপিং মসজিদে লিফলেট বিতরন করার সময় একজন যুবক হুমকি প্রদান করেছিল।
আহত কাউন্সিলার প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন তার বক্তব্যে উক্ত ওয়ার্ডের এক প্রার্থীর নাম উল্লেখ করে বলেন, গত দুই সাপ্তাহ আগে আমি ওয়াপিং মসজিদে লিফলেট বিতরন কালে ঐ প্রার্থীর ভাই পরিচয়ে দিয়ে উক্ত মসজিদে লিফলেট বিতরনে বাঁধা প্রদান করেন এবং নির্বাচনী প্রচারনা থেকে বিরত থাকতে হুমকি দেয়। পরবর্তীতে আমি আমার দলের লিডারদের জানালে তারা আমাকে আবারো ঐ ব্যক্তি বাঁধা দিলে পুলিশে ইনফর্ম করতে বলেন। তবে কে তাকে শুক্রবার বিকালে আঘাত করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঐ ব্যক্তির মুখ কাপড়ে আবৃত্ত থাকায় আমি তাকে চিনতে পারিনি। তবে পুলিশ তদন্তে নিশ্চয় বের হয়ে আসবে।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *