বিশ্বভারতী আসছেন শেখ হাসিনা: মোদির অগ্রাধিকার বাংলাদেশ ভবন উদ্ধোধনে


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর,সত্যবাণী

কলকাতা থেকেঃ সাম্প্রতিককালে এতবৃহৎ প্রতিনিধিদল নিয়ে ভারত সফরে আসেননি বাংলাদেশের কোনও প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু এবার বাংলাদেশের মন্ত্রী,বুদ্ধিজীবি,সাংবাদিক-সহ শতাধিক প্রতিনিধিদের নিয়ে বোলপুরের শান্তিনিকেতন সফরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।সত্যিকার অর্থেই এই সফর হতে চলেছে ভারত ও বাংলাদেশের রাজনীতিতে ঐতিহাসিক সফর।এমনটাই মনে করছে নয়াদিল্লি।উল্লেখ্য,আগামী ২৫মে বিশ্বভারতীর সমাবর্তনে শেখ হাসিনার পাশাপাশি যোগ দেবেন নয়া আচার্য্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দোপাধ্যায় ও  রাজ্যপাল কেশরিনাথ ত্রিপাঠি। নয়াদিল্লি সূত্রের খবর,সমাবর্তন নয়, প্রধানমন্ত্রী মোদির অগ্রাধিকারের  রয়েছে ওইদিনই শান্তিনিকেতনে বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি। ওই অনুষ্ঠানের পরেই হতে চলেছে মোদি-হাসিনা-মমতার বৈঠক।
নয়াদিল্লি সূত্রের আরও খবর, ২৫মে সকাল ৮টায় ঢাকা থেকে একটি বিশেষ বিমানে কলকাতার নেতাজি সুভাষ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামবেন শেখ হাসিনা। ওখান থেকেই ৬-৭টি হেলিকপ্টারে তিনি উড়ে যাবেন বোলপুরের উদ্দেশ্যে। সকাল ১০টায় শুরু হবে বিশ্বভারতীর সমাবর্তন। নেহেরু বেদিতে সমার্তন অনুষ্ঠান হবে ৪০ মিনিটের। সমাবর্তন অনুষ্ঠান শেষ করে বেলা ১২টায় মোদী এবং হাসিনা বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধন করবেন। সেখানে রাজ্যপাল এবং মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত থাকবেন। বাংলাদেশ ভবনের অনুষ্ঠান হবে ২০-৩০ মিনিটের। এখানে সংগীত ভবনের বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীরা অংশ নেবেন। এই অনুষ্ঠান শেষ করে রথীন্দ্র অতিথি গৃহে হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মোদী-মমতা। এই বৈঠকটি ২০ মিনিটের হওয়ার কথা।এই বৈঠক শেষ হওয়ার পর হেলিকপ্টারে কলকাতায় ফিরে আসবেন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দক্ষিণ কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে  তিনি দুপুরে বিশ্রাম নিয়ে  বিকালে যাবেন ভবানীপুরে নেতাজি ভবনে। সেখানে  তিনি নেতাজি সুভাষচন্দ্রের বাসভবন ঘুরে দেখবেন। এরপর তিনি যাবেন জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে। সেখানে কবিগুরুর প্রয়াণকক্ষ সহ বাংলাদেশ ও রবীন্দ্রনাথ শীর্ষক গ্যালারিটি দেখবেন।
পরের দিন ২৬ মে সকালে কলকাতা থেকে হেলিকপ্টারে আসানসোলে যাবেন প্রধানমন্ত্রী হাসিনা। সেখানে বেলা ১১টা জাতীয় সড়কের উপর অবস্থিত কাল্লা মোড়ে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে অংশ নেবেন। এই অনুষ্ঠানে থাকবেন রাজ্যপাল কেশরিনাথ ত্রিপাঠি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দোপাধ্যায়। অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা ও অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরকে ডক্টরেট প্রদান করা হবে। এর পাশাপাশি ভারতের ভাবা পরমানু গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানি মুহম্মদ ইউসুফকে ডিএসসি সম্মাননা প্রদান করা হবে।বাংলাদেশের সংসদ  নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই সফর  ঘিরে উৎসাহিত দু’দেশের কূটনৈতিকরা। এই প্রথম একসঙ্গে বাংলাদেশের ৩ জন মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর একাধিক উপদেষ্ঠা, সরকারি কর্মকর্তা ও ৫০ জন বুদ্ধিজীবির পাশাপাশি ঢাকা থেকে ৮০জন সাংবাদিকের আগমনকে যথেষ্ঠ গুরুত্ব দিচ্ছে নয়াদিল্লি। মনে করা হচ্ছে, দু’দেশের মধ্যে আটকে থাকা বেশকিছু রাজনৈতিক জটের সমাধান সূত্র মিলতে চলেছে শেখ হাসিনা সফরে।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *