মাদ্রিদে বাংলাদেশ মসজিদ পরিদর্শন ও ইফতারে পুলিশ প্রধান ও ডেপুটি মেয়র


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

কবির আল মাহমুদ
সত্যবাণী

মাদ্রিদ,স্পেন থেকেঃ ইউরোপে বেশ কিছু দিন ধরে মুসলিম ও মসজিদ নিয়ে নেতিবাচক ধারণা জন্মেছে বিভিন্ন জাতি-গোষ্ঠির মাঝে। বিশেষ করে তথাকথিত ইসলামী জঙ্গিগোষ্ঠি আই এস নামধারীরা একের পর এক বিভিন্ন ব্যাক্তি প্রতিষ্ঠানের  উপর হামলা চালালে মুসলিম ও মসজিদ নিয়ে নেতিবাচক ধারণা প্রকট আকার ধারণ করে। অনেকে প্রশ্ন তুলেন মসজিদের কার্যক্রম নিয়ে।এমন পরিস্থিতে মাদ্রিদে বাংলাদেশি পরিচালনাধীন বায়তুল মোকাররম মসজিদ  কমিটির পক্ষ থেকে বেশ কিছু ইতিবাচক উদ্দ্যোগ গ্রহন করা হয়। মসজিদে নন মুসলিমদের জন্য উন্মোক্ত করে দেওয়া হয়।কতৃপক্ষের আমন্ত্রনে এ পর্যন্ত বিভিন্ন ব্যাক্তি-প্রতিষ্ঠান  পরিদর্শন করেন মসজিদ গুলো।এর অংশ হিসাবে মাদ্রিদে  বায়তুল মোকাররম  বাংলাদেশ মসজিদ  পরিদর্শনে আসেন মাদ্রিদ পুলিশ প্রধান ও মাদ্রিদ সিটি কার্পেরেশনের ডেপুটি মেয়র।গতকাল  সোমবার  (১১জুন ) মাদ্রিদ পুলিশ প্রধান ও ডেপুটি মেয়র মসজিদ  কর্তৃপক্ষের আমন্ত্রনে ইফতার ও আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণ করেন।এসময় তারা বায়তুল মোকাররম বাংলাদেশ  মসজিদের বিভিন্ন কার্যক্রম ও এক সাথে বিভিন্ন দেশের মুসলমানদের  ইফতার করতে  দেখে সন্তুষ প্রকাশ করেন।

এর আগে  মাদ্রিদ পুলিশ প্রধান ও মাদ্রিদ সিটি ডেপুটি মেয়র মসজিদে আসলে তাদেরকে  স্বাগত জানান মসজিদ  পরিচালনা কমিটির  সভাপতি  খোরশেদ আলম মজুমদার,সাধারন সম্পাদক আব্দুল খালিক,মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহী,মসজিদ কমিটির  কর্মকর্তাবৃন্দসহ মুসল্লিরা।

এসময় তারা মুসলমানদের সাথে এক কাতারে বসে ইফতার ও করেন।ইফতার এ মুসলিম ও অমুসলিম পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠেছিল মসজিদ প্রাঙ্গন। মসজিদ পরিচালনা কমিটির  চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম মজুমদারের সভাপতিত্বে  ইফতার মাহফিল পূর্ব এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।মানবাধিকার সংগঠন  ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে এলাহীর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন  মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশনের ডেপুটি মেয়র খোরখে গ্রাসিয়া কাস্তিয়ানো, নিরাপত্তা বিষয়ক কাউন্সিলর খাবিয়ের বারবেরো,মাদ্রিদ ম্যুনিসিপাল পুলিশের প্রধান পরিদর্শক ফ্রান্সিসকো কালেত্রিয়ো, মাদ্রিদ ম্যুনিসিপাল পুলিশ (দক্ষিণ) প্রধান খুয়ান মানুয়েল,বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্সিয়াল কউন্সিলর নাভিদ সফিউল্লাহ,সিটি কর্পোরেশন সেবা কেন্দ্রের প্রধান প্রধান ব্যবস্থাপক কারমেন সোপেদা, অটোনমাস ইউনিভার্সিটি অব মাদ্রিদের পরিচালক কার্লেস জিমেনেস রমেরো,মাদ্রিদ সেবা কেন্দ্রের প্রধান বেগোনিয়া,সেন্ত্র মাদ্রিদ স্বাস্থ্য বিভাগের ব্যবস্থাপনা পরিচালক টনি,রেড ইন্টার লাভাপিয়েস এর প্রধান পেপা টোরেস, এররে এসের প্রধান সিমেন্স,সেন্ত্র সান লরেন্সের পরিচালক সাগররিও,মাদ্রিদ গির্জার প্রধান খসে লুইস সাঞ্চো,রাণী সুফিয়া জাদুঘরের পরিচালক আন লোনগনি,ইফতার এর আয়োজক  বিশিষ্ট শিল্পপতি আব্দুস সুবহান,মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলার  সাধারন সম্পাদক রমিজ উদ্দিন,ভালিয়েন্তে বাংলার সিনিয়র সদস্য ও  মানবাধিকার কর্মী আফরোজা রহমান,মসজিদ পরিচালনা কমিটির অর্থ সম্পাদক হারুনুর রাশিদ ,নুরুল আলম প্রমুখ।

এসময় মসজিদ পরিচলানা কমিটির সভাপতি মুসলমানদের নামাজ আদায়ের জন্য স্থান সংকুলান  না হওয়ার কথা তুলে ধরে সিটি কার্পেরসনের পক্ষ থেকে একটি স্থান বরাদ্দের দাবী জানালে মাদ্রিদ ডেপুটি মেয়র বলেন সিটি কোরপার্সনের নিকট বরাদ্দ দেয়ার মত এই মুহূর্তে কোনো স্থান নেই। তবে আগামীতে চেষ্টা করা হবে একটি স্থান বরাদ্ধের জন্য।এসময় উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্সিয়াল কউন্সিলর নাভিদ সফিউল্লাহ  বলেন,আমরা যতবেশি একজন আরেকজন সম্পর্কে জানতে পারবো,তত বেশি আমাদের পারস্পরিক সম্পর্কের উন্নতি হবে এবং বিশ্বাস সুদৃঢ় হবে।

md 3md 7

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *