ভারত থেকে বাংলাদেশে চৈতন্য মহাপ্রভুর পাদুকা


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর,সত্যবাণী

কলকাতা থেকেঃ ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সৌভ্রাতৃত্ব অটুট রাখতে দেশের বাইরে বিদেশে অর্থাৎ বাংলাদেশে পাড়ি দিচ্ছে গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর চরণ পাদুকা।মঙ্গলবার সকালে নবদ্বীপ ধামেশ্বর গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর মন্দির থেকে প্রশাসনিক বিশেষ নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে কলকাতা বিমানবন্দর হয়ে বিমানে বাংলাদেশে যায় মহাপ্রভুর চরণ পাদুকা। এদিন সকালে বিশেষ পুলিশি নিরাপত্তায় নবদ্বীপ মহাপ্রভূপাড়ার মন্দির থেকে কলকাতা বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। দুপুরে বাংলাদেশগামী বিমানে চট্টগ্রামে পৌঁছবে এই চরণ পাদুকা।
শ্রীশ্রীহরিভক্তি প্রচারনী সভার উদ্যোগে যামিনীমোহন সেন হলে চলবে বিশেষ পুজোপাঠ,নামসংকীর্তন।সেখানেই পাদুকা দর্শন  করতে পারবেন পূর্নাথীরা।এরপরই শুক্রবার দুপুরে ঢাকা থেকে এই চরণ পাদুকা বিমানে কলকাতা বিমানবন্দর  হয়ে ফিরে আসবে নবদ্বীপে বলে জানিয়েছেন অন্যতম সেবায়েত সুদিন গোস্বামী ও বিষ্ণুপ্রিয়া সেবা সমিতির সম্পাদক জয়ন্ত গোস্বামী।সুদিন গোস্বামী বলেন,ভারতের বাইরে এই প্রথম পাদুকা বাংলাদেশে যাচ্ছে। দুদেশের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ বাতাবরণ তৈরি হয়েছে তাকে আরও সুদৃঢ় করতে এই সফর।সেখানেই ভক্তরা এই পাদুকা দর্শন করতে পারবেন বলে তিনি জানান।বাংলাদেশের চট্টগ্রামের শ্রীশ্রীহরিভক্তি প্রচারনী সভার উদ্যোগে যামিনীমোহন সেন হলে চারদিন বিশেষ পুজোপাঠ, নামসংকীর্তনের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের ভক্তরা এই পাদুকা দর্শন করবেন বলে মন্দির সূত্রে খবর।মন্দিরের সেবাইত সুদিন গোস্বামী জানান মহাপ্রভুর পিতৃভূমি বাংলাদেশের সিলেট দক্ষিণ ঢাকায়।তিনি পিতৃভূমিতে একবারই গিয়েছিলেন সচীদেবীর সাথে।তারপর আর কোন সংযোগ ছিল নাউল্লেখ্য,১৯৬০ সালে তৎকালীন পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ মন্ত্রী তরুণ কান্তি ঘোষের বাড়ি বারাসাত ইংরেজি ও বাংলা মাসের প্রথম দিন বছরে দুদিন যেত এই পাদুকা।তিনি এই খরম পাদুকা অরক্ষিত থাকার কারনে সাড়ে চার কেজি রুপোর পাতদিয়ে বাঁধিয়ে দিয়েছিলেন।সেকারনে পাডুকার গায়ে রুপোয় তাদের নাম উল্লেখিত আছে।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *