মিজারুল কায়েসের মৃত্যুতে শোকবিহ্বল ব্রাসিলিয়ার কুটনৈতিক অঙ্গন: সামরিক সম্মান জানাচ্ছে ব্রাজিল


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

সৈয়দ আনাস পাশা                                                                                                                                   এডিটর-ইন চিফ, সত্যবাণী                                                                                                                                               

Brazil Photo Final-1 Brazil Photo Final-2

লন্ডন: ব্রাজিলে বাংলাদেশের সদ্য প্রয়াত রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েসের মৃত্যুতে শোকবিহ্বল রাজধানী ব্রাসিলিয়ার কুটনৈতিন অঙ্গন। ব্রাসিলিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশনে সদ্য প্রয়াত রাষ্ট্রদূতের মৃত্যুতে ১৩ মার্চ, সোমবার থেকে খোলা শোক বইতে বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা স্বাক্ষর করতে এলে এই শোকের বহি:প্রকাশ ঘটে। ব্রাসিলিয়া বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে এখবর জানা গেছে।

Brazil Photo Final-3
ছবি: বাংলাদেশ দূতাবাস, ব্রাসিলিয়া, ব্রাজিল

এশিয়া, ল্যাতিন আমেরিকা, ইউরোপসহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতরা সোমবার থেকেই পৃথক পৃথক ভাবে এসে স্বাক্ষর করছেন বাংলাদেশ দূতবাসে রাখা শোক বইতে। এসময় তাঁরা তাদেরই সহকর্মী মিজারুল কায়েসকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ
করেন, শান্তনা দেন প্রয়াত রাষ্ট্রদূতের স্ত্রী নাঈমা কায়েস ও দূতাবাসের চার্য দ্যা এফেয়ার্স সুমনা ইকবালকে। কেউ কেউ এসময় প্রয়াত মি: কায়েসের সাথে তাদের মধুর স্মৃতিগুলোও করেন রোমন্থন। কুটনীতিকরা মিজারুল কায়েসকে একজন মেধাবী ডিপ্লোমেট আখ্যায়িত করে বলেন, ল্যাতিন আমেরিকার দেশগুলোর সাথে বাংলাদেশের কুটনৈতিক সম্পর্ক নতুন এক উচ্চমাত্রায় নিয়ে গিয়েছিলেন প্রয়াত মি: কায়েস। ব্রাজিল-বাংলাদেশ সম্পর্কও তাঁর চেষ্টায় প্রবেশ করছিলো নতুন এক দিগন্তে। বাংলাদেশের সাথে ল্যাতিন আমেরিকার দেশগুলোর বানিজ্যিক সম্পর্কের ভিত্তি মজবুত করতে প্রয়াত রাষ্ট্রদূত মি: মিজারুল কায়েসের অবিরাম প্রচেষ্টার কথা স্মরণ করে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতরা এই সম্পর্ক ঠিকিয়ে রাখতে তাদের চেষ্টা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দেন।

ব্রাজিলের পররাষ্ট্র সচিব এম্বেসেডর মার্কোস বেজেররা এববট গালভাও  (Ambassador Marcos Bezarra Abbott Galvao) শোক বইতে স্বাক্ষর করতে এসে শান্তনা দেন প্রয়াত মি: কায়েসের স্ত্রী নাঈমা কায়েসকে। মি: মিজারুল কায়েসকে একজন চমৎকার মানুষ মন্তব্য করে তিনি সদ্য স্বামীহারা নাঈমা কায়েসকে বলেন, কর্মক্ষেত্রে জনাব কায়েস যেমন ছিলেন একজন মেধাবী কুটনীতিক, ঠিক তেমনি মানুষ হিসেবে ছিলেন বিশাল হৃদয়ের। এমন একজন কুটনীতিকের মৃত্যু সংশ্লিষ্ট দেশটির জন্য অবশ্যই বিরাট ক্ষতি।

কুটনীতিক ছাড়াও ব্রাসিলিয়ার বিভিন্ন সেক্টরের হাইপ্রোফাইল ব্যক্তিরাও দূতাবাসে এসে শোক বইতে স্বাক্ষরের মাধ্যমে তাদের সমবেদনা জানাচ্ছেন, আসছেন অনেক সাধারণ ব্রাজিলিয়ানও। প্রয়াত মিজারুল কায়েস শিশুদের প্রচন্ড ভালোবাসতেন এমনটি জানিয়ে দূতাবাসের পক্ষ থেকে আগেই অনুরোধ করা হয়েছিলো ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা  জ্ঞাপনে আগ্রহীরা যেন ফুল না এনে এই অর্থ রিও ভিত্তিক শিশু এনজিও ‘সিমেনথে ডু আমানহা’য় দান করে দেন। এই এনজিও‘র একজন অন্যতম শীর্ষ পৃষ্টপোষক ছিলেন প্রয়াত রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েস। তাঁর মৃত্যুতে এনজিওটির শিশু-কিশোরদের মধ্যেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

এদিকে, ব্রাসিলিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েসের স্মরণে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা পর্যন্ত দূতাবাসে খোলা থাকবে শোক বই। বুধবার বাংলাদেশের সদ্য প্রয়াত এই রাষ্ট্রদূতকে সামরিক সম্মাননা জানাবে ব্রাজিল সরকার। স্থানীয় সময় সকাল ১১.৩৫ মিনিটে সেনা সদস্য পরিবেষ্টিত হয়ে প্রয়াত মিজারুল কায়েসের শবদেহবাহী মোটরবহর যাত্রা শুরু করবে সামরিক সম্মাননা স্থলের দিকে। দুপুর ১২টায় ডিপ্লোমেটিক কোরের উপস্থিতিতে সামরিক বাহিনীর সদস্যরা সম্মান জানাবে বাংলাদেশের সদ্য প্রয়াত রাষ্ট্রদূতকে। এসময় প্রথমে বাংলাদেশ ও পরে বাজবে ব্রাজিলের জাতীয় সঙ্গীত। জাতীয় সঙ্গীত শেষে বাংলাদেশ ও ব্রাজিলের পক্ষ থেকে প্রয়াত রাষ্ট্রদূতের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বক্তব্য রাখবেন ব্রাসিলিয়া বাংলাদেশ দূতাবাসের চার্য দ্যা এফেয়ার্স সুমনা ইকবাল এবং ব্রাজিলের পররাষ্ট্র সচিব এম্বেসেডর মার্কোস বেজেররা এববট গালভাও। তোপধ্বনির মাধ্যমে শেষ হবে সামরিক সম্মাননা। ১২.৫৫ মিনিটে সামরিক সম্মাননাস্থল অরাটোরিও ডু সলডাডো ত্যাগ করে ব্রাসিলিয়ার কেন্দ্রীয় ইসলামিক সেন্টার অভিমুখে যাত্রা শুরু করবে মিজারুল কায়েসকে বহনকারী মোটর শোভাযাত্রা। ১.১৫ মিনিটে সেখানে অনুষ্ঠিত হবে তাঁর নামাজে জানাজা। এরপরই শুরু হবে মরদেহ দেশে পাঠানোর আনুষ্ঠানিকতা।

 

15th March’2017, 11:59 GMT

 

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *