ভারত-বাংলাদেশ সমস্যা তৈরীর পরিকল্পনা ছিলো কার্লাইলের: অভিযোগ ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, সত্যবাণী

কলকাতা থেকে: দিল্লী সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাথে ভারতের সমস্যা সৃষ্টির পরিকল্পনা ছিলো ব্রিটিশ হাউস অফ লর্ড সদস্য লর্ড কার্লাইলের, এমন অভিযোগ করেছে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়।

বুধবার রাতে দিল্লী বিমান বন্দর থেকে ফেরত পাঠানোর পর লন্ডনে ফিরে গিয়ে লর্ড কার্লাইল এক ভিডিও কনফারেন্সে ঘটনাটিকে ‘অসহিষ্ণুতার বিষয়’ বলে মন্তব্য করলে বৃহস্পতিবার ভারতের বিদেশ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার  কার্লাইলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উত্তাপন করেন।

রবীশ কুমার বলেন, ‘লর্ড কার্লাইলের ভিসা বাতিলের কথা তাকে আগেই জানানো হয়েছিল। তিনি যে কাজের জন্য ভারত সফরে আসতে চাচ্ছিলেন ভিসা আবেদনের ফর্মে তা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করেননি। ভিসা আবেদনের ফর্মে তিনি ভারত সফরের যে উদ্দেশ্যের কথা উল্লেখ করেছিলেন, সেটির সঙ্গে তার ভারতে আসার মূল উদ্দেশ্যের মিল না থাকায় ভিসা বাতিল করা হয়েছিল।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন,‘ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সমস্যা তৈরী করতে তিনি আসছিলেন এটা আমরা বুঝতে পেরেছিলাম। এর ফলে বাংলাদেশের বিরোধীদলগুলোর সঙ্গেও আমাদের ভুল বুঝাবুঝি হতে পারত’।  রবীশ কুমার প্রশ্ন রাখেন, ‘সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কিছু বলার থাকলে কার্লাইল কেন লন্ডন থেকে তা বললেন না? কেন তিনি ভারতে এসে এটি বলার পরিকল্পনা করলেন?’ তিনি বলেন, ‘এখানে আসলে আমাদের দেশের আইন মানতে হবে। তাকে জানতে হবে বাণিজ্যিক ভিসা  নিয়ে এসে সাংবাদিক সম্মেলন করা যায় না।’ লর্ড কার্লাইল জানতেন 

তিনি ভারত থেকে ফিরে যাবেন তাই তিনি রির্টান টিকিটও নিয়ে এসেছিলেন বলে জানান ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই মুখপাত্র।

উল্লেখ্য, বিএনপি চেয়ারপার্সন ও বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার পক্ষে ওকালতি করতে আসা ব্রিটিশ আইনজীবী ও হাউস অব লর্ডসের সদস্য লর্ড কার্লাইলকে দিল্লি বিমানবন্দর থেকে বুধবার রাতে লন্ডনে ফেরত পাঠানো হয়।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির বিষয়ে লর্ড কার্লাইলের দিল্লির মেরিডিয়ান হোটেলে বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার সাংবাদিক সম্মেলন করার কথা ছিল। এতে বাংলাদেশ থেকে উপস্থিত থাকার কথা ছিল বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু ও ব্যারিস্টার নওশাদ জমিরের। 

বুধবার রাত ১০টার দিকে দিল্লি বিমানবন্দরে পৌঁছান লর্ড কার্লাইল। কিন্তু ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ তাকে প্রবেশের অনুমতি না দিয়ে দুই ঘণ্টা পর লন্ডনের ফিরতি ফ্লাইটে তুলে দেয়। লর্ড কার্লাইল গত সপ্তাহে জানিয়েছিলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে কীভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ‘মিথ্যা মামলা’য় ফাঁসানো হয়েছে, তা ব্যাখ্যা করতে তিনি দিল্লি আসবেন। এই সংবাদ সম্মেলন ঢাকায় করার ইচ্ছা থাকলেও ভিসা জটিলতায় তা করতে পারেননি।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *