সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সাথে বৈঠক: জাহাজ নির্মাণ ও ড্রেজিং বিষয়ে আলোচনা


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

প্রেস রিলিজ ডেস্ক
সত্যবাণী

নেদারল্যাল্ড: উন্নয়নের মহাসড়কে আজকের যে বাংলাদেশ তার ধারাবাহিকতায় জাহাজ নির্মাণ,ড্রেজিং,নদী শাসন,ভূমি পুনরুদ্ধার ইত্যাদির মতো বিষয়ে প্রয়োজন প্রশিক্ষিত জনগণ।পানির সাথে শতবর্ষের যুদ্ধে বিজয়ী নেদারল্যান্ডের বিভিন্ন উদাহরণ নদীমাতৃক বাংলাদেশে কিভাবে প্রয়োগ করে আগামীর বাংলাদেশকেও কিভাবে বিশেষায়িত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বের জন্য প্রশিক্ষিত কর্মী সরবরাহকারী দেশে পরিনত করা যায় সে আলোচনা বারবার উঠে এসেছে ১৩ সদস্যের নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত পার্লামেন্টারি স্ট্যান্ডিং কমিটির সাথে বাংলাদেশ দূতাবাস,নেদারল্যান্ডের আলোচনায়।
প্রতিনিধিদলের নেতা পার্লামেন্টারি স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান জনাব রফিকুল ইসলাম,এমপি,বাংলাদেশ দূতাবাসের এ পর্যন্ত গৃহীত কার্যক্রম মনোযোগ দিয়ে শোনেন এবং বাংলাদেশ ফিরে গিয়ে জাহাজ শিল্পে,ড্রেজিং,নদী অনুশাসন ও ভূমি পুনরুদ্ধারে বিশেষায়িত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব গুরুত্বের সাথে বিবেচনার আশ্বাস প্রদান করেন।
বাংলাদেশ পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব কবির বিন আনোয়ার-এর তত্ত্বাবধানে ও দূতাবাসের প্রত্যক্ষ সহায়তায় IHE Delft বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি প্রতিনিধিদলের বাংলাদেশে ড্রেজিং বিষয়ক প্রশিক্ষনালয় প্রতিষ্ঠার সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের চলমান সফর সম্পর্কে অবহিত করে রাষ্ট্রদূত শেখ মুহম্মদ বেলাল চট্রগ্রাম বন্দরের ও Rotterdam Port এর মধ্যে আরও গভীরতর প্রাতিষ্ঠানিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য গুরুত্ব আরোপ করেন। মাননীয় প্রধান্মন্ত্রী শেখ হাসিনার নভেম্বর ২০১৫ সালে নেদারল্যান্ড সফরের ধারাবাহিকতায় Rotterdam Port ও চট্রগ্রাম বন্দরের মধ্যে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সুযোগ সৃষ্টির জন্য চট্রগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান কমোডর জুলফিকার আজিজ দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানিয়ে চট্রগ্রাম বন্দরের capacity building এর জন্য দূতাবাসকে আহ্বান জানান। জবাবে রাষ্ট্রদূত শেখ মুহম্মদ বেলাল এ ব্যাপারে Nuffic (নেদারল্যান্ডের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারী সংস্থা) এর দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন আছে বলে প্রতিনিধিদলকে অবহিত করেন। রাষ্ট্রদূত বেলাল রটারড্যাম বন্দরের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভূমি পুনরুদ্ধারের মাধ্যমে চট্রগ্রাম বন্দরের ভূমি সমস্যা সমাধান পূর্বক Bay Terminal এর মতো প্রকল্পের দ্রুত বাস্তবায়নের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।দূতাবাস চট্রগ্রাম বন্দরের ডুবন্ত জাহাজ পুনরুদ্ধারে নেদারল্যান্ডের অভিজ্ঞতা ও আগ্রহের ব্যাপারেও প্রতিনিধিদলকে অবহিত করেন।
উল্লেখ্য,১৩ সদস্যের এই প্রতিনিধিদল জার্মানির হামবুর্গ,বেলজিয়ামের আন্টওয়ারপ ও নেদারল্যান্ডের রটারড্যাম সহ ইউরোপে ১০ দিনের সফরে আছেন।প্রতিনিধিদলে পার্লামেন্টারি স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য সহ চট্রগ্রাম বন্দর, পায়রা বন্দরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অন্তর্ভুক্ত আছেন।

07972e3a-edeb-4e54-bc85-4e61ce77320fIMG_1791

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *