টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নো প্লেইস ফর হেইট ক্যাম্পেইনের সম্মানসূচক এওয়ার্ড লাভ


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

লন্ডন: টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল নো প্লেইস ফর হেইটম্ব ক্যাম্পেইনের জন্য সম্মানসূচক এওয়ার্ড অর্জন করেছে।নো টু হেইট ক্রাইমম্ব সংস্থার পক্ষ থেকে তাদেরকে এই এওয়ার্ড প্রদান করা হয়।হিংসা,অসহিঞ্চুতা এবং পূর্বধারনা বা কুসংস্কার প্রতিরোধে নানামুখী কার্যক্রম এবং উদ্যোগের জন্য টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল এই এওয়ার্ড লাভ করে।সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে টিভি প্রেজেন্টার এবং সোশাল কমেন্টেটর জুন সারপং এমবিই কাউন্সিল প্রতিনিধির কাছে এই এওয়ার্ড তুলে দেন।
নো টু হেইট ক্রাইমম্ব এর একটি বিচারক প্যানেল বিভিন্ন বিচার বিশ্লেষনের পর টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলকে এই ওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন দেয়।সংস্থাটি গত ১০ বছর ধরে ব্রিটিশ সমাজে হিংসা বিদ্বেষ দূর করার কাজে যেসব ব্যক্তি এবং সংস্থা নিয়োজিত তাদেরকে এই পুরষ্কার প্রদান করে আসছে।এবছর পুরষ্কার প্রদানের ক্ষেত্রে ব্রেক্সিট পরবর্তী হিংসা বিদ্বেষের বিরুদ্ধে যারা কাজ করেছেন তাদেরকে প্রাধান্য দেয়া হয়।এছাড়া বিচারকরা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ঘটনা প্রবাহের নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া প্রতিরোধের কাজকেও আমলে নেন।বিচারকরা ব্রিটেন ফার্স্ট এবং শরিয়া পেট্রোলের উসকানীমূলক প্রপাগান্ডা মোকাবেলায় টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের পাব্বা কার্যক্রমের প্রশংসা করেন।
টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল এই এওয়ার্ড লাভ করায় বারার নির্বাহী মেয়র জন বিগস তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমি আনন্দিত যে আমাদের একটি গুরুত্বপূর্ন কাজের স্বীকৃতি জাতীয় পর্যায় থেকে এসেছে। এই কৃতিত্ব কাউন্সিল স্টাফ এবং বারার বাসিন্দাদের। তারাই একে পদদলিত করেছেন।মেয়র বলেন,বৈচিত্র্যই আমাদের কমিউনিটির সবচাইতে বড় শক্তি। আমরা একে সমুন্নত রাখতে সব সময় চেষ্ঠা চালিয়ে যাবো।
কমিউনিটি সেইফটি বিষয়ক কেবিনেট মেম্বার কাউন্সিলার আসমা বেগম বলেন,এই ক্যাম্পেইন আমাদের কমিউনিটির জন্য অনেক ইতিবাচক ফল নিয়ে এসেছে। আমাদের স্টাফ এবং ভলান্টিয়াররা সকল ধরনের হিংসা বিদ্বেষ রোধে কঠোর পরিশ্রম করেছেন।আমিও আনন্দিত যে তারা এর জাতীয় স্বীকৃতি পেলেন।এই এওয়ার্ডকে সমর্থন জানিয়ে হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাবিদ এমপি বলেন,ব্রিটিশ সোসাইটির ইতিবাচক দিকটি তুলে ধরার জন্য এই পুরষ্কারটি একটি বিশেষ সুযোগ। আমাদের সৌভাগ্য যে,আমরা একটি বৈচিত্র্যে ভরপুর সহনশীল এবং স্বাধীন সমাজে বাস করছি। তিনি আরো বলেন, হেইট ক্রাইম সবাইকেই স্পর্শ করে এবং জাতী ধর্ম নির্বিশেষে সমাজের সর্বস্থরের জনগোষ্ঠি এর বিরুদ্ধে কাজ করেন। তাদেরকে অবশ্যই আমাদের উ্সাহ করে যেতে হবে।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *