বিতর্কিত ধর্মীয় বক্তব্যে সমালোচনার মুখে লন্ডনের মেয়র প্রার্থী বেইলি


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

যুক্তরাজ্যঃ ১৩ বছর আগে যুক্তরাজ্যের সাংস্কৃতিক বৈচিত্রময়তা নিয়ে প্রকাশ করা মতামত নিয়ে বিতর্কের মুখে পড়েছেন ২০২০ সালে লন্ডনের মেয়র নির্বাচনে ব্রিটেনের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির মনোনীত প্রার্থী শাউন বেইলি।লেবার পার্টির বর্তমান মেয়র সাদিক খানের বিরুদ্ধে ভোটে লড়তে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

২০০৫ সালে শাউন বেইলি থিংকট্যাংক প্রতিষ্ঠান ‘সেন্টার ফর পলিসি স্টাডিজ’র হয়ে একটি পুস্তিকা লিখেছিলেন। ওই পুস্তিকায় ব্রিটেনের সাংস্কৃতিক পাটাতনে মুসলিম ও হিন্দু প্রভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন তিনি।নো ম্যানস ল্যান্ড’ নামের পুস্তিকায় তিনি লিখেছিলেন,আপনি আপনার সন্তানকে স্কুলে পাঠালেন আর তারা ক্রিসমাসের চেয়ে দিওয়ালি (হিন্দু ধর্মীয় উৎসব) সম্পর্কেই বেশি জানলো।

এছাড়া লন্ডনভিত্তিক এক গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির হয়ে যৌথভাবে প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধে লন্ডন ‍আইন সভার সদস্য বেইলিকে হিন্দু ধর্ম এবং হিন্দি ভাষা নিয়ে বিভ্রান্ত হতে দেখা গেছে।তিনি লিখেছেন,ব্রেন্ট (উত্তর পশ্চিম লন্ডন)-এর মানুষদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি।তারা মুসলিম এবং হিন্দি ছুটিও পায়।এটা বিট্রেনের কমিউনিটিকে হরণ করে নিচ্ছে।আমাদের কমিউনিটি ছাড়া আমরা একটি অপরাধগ্রস্থ নোংরাস্থানে পতিত হবো।

ওই পুস্তিকার মূল বিষয়বস্তুতে তার এমন মতামত প্রতিফলিত হতে দেখা গেছে যে,বহুসংস্কৃতির কারণে যুক্তরাজ্যে খ্রিস্ট ধর্মীয় সংস্কৃতি আড়াল হয়ে যাচ্ছে।তিনি লিখেছেন,স্থান হিসেবে ব্রিটেন এবং একটি পূর্ণাঙ্গ মানুষ হিসেবে ব্রিটিশ জনগণের সত্যি অনেক ভালো কিছু রয়েছে।কিন্তু ব্রিটিশ মানুষ সাধারণত যে ধর্ম গ্রহণ করে তাকে পাশ কাটিয়ে,তারা যে মূল্যবোধ ধারণ করে তাকে পাশ কাটিয়ে আমরা মানুষদের তাদের সংস্কৃতি,তাদের দেশ এবং তাদের থাকতে পারে এমন সম্ভাব্য সব সমস্যা সঙ্গে নিয়ে ব্রিটেনে আসতে দিচ্ছি।

কৃষ্ণাঙ্গ এই এমপি লিখেছেন,কৃষ্ণাঙ্গ সম্প্রদায় নিয়ে এধরণের বাজে সমস্যা নেই কারণ আমরা একই ধর্ম এবং কোনও কোনও ক্ষেত্রে একই ভাষা ব্যবহার করি।কালো মানুষদের সঙ্গে সমন্বয় করা অনেক সহজ।আমরা কিভাবে এখানে তাও আলাদা।যদি বয়স্ক কালো মানুষদের সঙ্গে কথা বলেন তাহলে তারা বলবেন,তাদের এখানে রাণি আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।তারা নিজেদের কোনোভাবেই এখানকার শরণার্থী বা অভিবাসী বলে চিন্তা করে না।

ওই পুস্তিকা নিয়ে বিতর্ক শুরু করেছেন লন্ডনের বর্তমান মেয়র সাদিক খানের লেবার পার্টির সহকর্মীরা।শাউন বেইলির ২০২০ সালের মেয়র প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিতে কনজারভেটিব দলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন লেবার এমপি বীরেন্দ্র শর্মা।পশ্চিম লন্ডনের ইয়ালিং ও সাউথাল এলাকার আসনের এই প্রতিনিধি বলেন,এটা খুবই আতঙ্কজনক যে আজকের এই দিনে এবং যুগে এমনকি টরিরাও (কনজারভেটিব দলীয়রা) লন্ডনের মেয়র হিসেবে সেকেলে ও আপত্তিকর মতামতের অধিকারী প্রার্থী মনোনয়ন দেয়।লন্ডনকে মহান করে তুলেছে যে বহুসংস্কৃতি তাকেই বাতিল করে দেওয়ার পরও শাউন বেইলি প্রার্থীতা এগিয়ে নিতে পারুক তা আমি দেখতে চাই না’।

লন্ডনের আরেক এমপি অ্যান্ডি স্লটার বলেন,ক্রমেই পরিষ্কার হয়ে উঠছে যে তিনি যে মত ধারণ করেন তা সবচেয়ে বেশি বিভেদ সৃষ্টিকর এবং সবচেয়ে বেশি ইসলামবিদ্বেষী।খোলাখুলিভাবে বলতে পারি আমরা কনজারভেটিবদের কাছ থেকে আরও ভালো কিছু প্রত্যাশা করি।যুক্তরাজ্যে ইসলামবিদ্বেষী হামলা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা টেল মামাও সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী শাউন বেইলির সমালোচনা করেছে।এক বিবৃতিতে সংস্থাটি বলেছে,আমরা হিন্দু ও মুসলমান সম্প্রদায় নিয়ে এধরণের মতামত গ্রহণ করতে পারি না।এমনকি আমরা কোনও সম্প্রদায় ঘিরে ঘৃণা ও বর্ণবাদী মতামত মেনে নিতে পারি না।তবে এসব সমালোচনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন বেইলির এক মুখপাত্র।মুখপাত্র বলেছেন, এই রাজনীতিবিদ গত ২০ বছর ধরে বহু সম্প্রদায়ের সঙ্গে কাজ করেছেন।ব্রিটেনে কালো এবং নৃতাত্ত্বিক সম্প্রদায়ের মোকাবিলা করা চ্যালেঞ্জগুলোর বিষয়ে ভালো ধারণা রাখেন তিনি।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *