ডিসেম্বরের মধ্যেই নির্বাচন: ইসি সচিব


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

ঢাকাঃ নির্বাচন কমিশন (ইসি)  ডিসেম্বরের মধ্যেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করতে চায় বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন,আমাদের টার্গেট- ডিসেম্বরের মধ্যেই নির্বাচন করতে চাই।রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ (আরপিও) সংশোধনের বিষয়ে তিনি বলেন,আরপিও সংশোধনের জন্য আমরা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেছিলাম।আমরা সর্বশেষ যে সংবাদ পেয়েছি- ইতোমধ্যে আইন মন্ত্রণালয়ে সেটি ভেটিং করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হয়েছে,যাতে এটি পূর্ণাঙ্গ একটি আইনে রূপ লাভ করতে পারে।

ইসি সচিব বলেন,আশা করছি,এই সংসদে এটা পাস হতে পারে।পাস না হলে সংসদের অবর্তমানে যে বিষয়টি (অধ্যাদেশ) থাকে সেটি কার্যকর হবে।আমাদের যে মূল আইন (আরপিও) আছে সেটাও আধ্যাদেশের মাধ্যমে। অধ্যাদেশের মাধ্যমে এটি করা যেতে পারে।পরবর্তী সংসদের প্রথম অধিবেশনে এটা আইনে পরিণত হতে পারে। তবে আমরা এখনো আশা করছি,এটি চলতি জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা হবে। যেহেতু সংসদ ২৯ তারিখ পর্যন্ত চলবে, সেখানেই এটি পাস হওয়ার সম্ভবনা আছে।

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন,রাষ্ট্রপতি আমাদের সাক্ষাতের জন্য ১ তারিখ সময় দিয়েছেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নেতৃত্বে নির্বাচন কমিশন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবে।এর পরে কমিশন বৈঠকে বসবে। পরবর্তীতে তফসিল এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে।একজন কমিশনার দেশের বাইরে আছেন। উনি দেশে ফিরলে সবাই বসে সিদ্ধান্ত নেবেন।জাতির উদ্দেশে ভাষণের মধ্য দিয়েই তফসিল ঘোষণা করা হবে বলেও জানান তিনি।ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) বিষয়ে তিনি বলেন,ইভিএমে খুব সহজেই ভোট প্রদান করা যায়।স্মার্ট কার্ড না থাকলেও এনআইডি কার্ডের নাম্বার দেওয়ার পর আঙ্গুলের ছাপ দিলেই ভোট দেওয়া যাবে।

ইভিএমে ভোট প্রদানের ক্ষেত্রে সহকারী রিটার্নিং অফিসার ভোট দিতে পারেন,এর ফলে অপব্যবহারের সুযোগ আছে কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,ভোটার সুনির্দিষ্ট হলে সেই ভোটারের আঙ্গুলের ছাপ মেশিনে গ্রহণ করলে অ্যাসিস্ট করার জন্য একটি অপশন আছে।অন্ধ ব্যক্তি ভোট দিতে আসলে তিনি নিজে ভোট দিতে পারেন না,তার ভোট প্রদানে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তার অ্যাসিস্ট করার একটি বিধান আছে।সেখানে কোনো অপব্যবহার করার সুযোগ নেই। কারণ,সেখানে প্রিজাইডিং অফিসার,পোলিং অফিসার,পোলিং এজেন্ট সবাই থাকবেন।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *