নেত্রীর সিদ্ধান্তের প্রতি আনুগত্যশীল হয়ে কাজ করে যাব : মনোনয়নবঞ্চিত সৈয়দ ফারুক


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

মো. মুন্না মিয়া
সত্যবাণী

সুনামগঞ্জ থেকেঃ আগামী ৩০ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী দিয়েছে।দল থেকে অনেক হেভিওয়েট প্রার্থী মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছেন।এমন একজন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।তিনি মনোনয়ন চেয়েছিলেন ভিআইপি খ্যাত সংসদীয় আসন সুনামগঞ্জ-৩ এর।কিন্তু ক্ষমতাসীন বর্তমান সাংসদ অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানের প্রতি ভরসা রেখে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে তাঁকে।মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েও মাঠে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার প্রার্থীর পক্ষে কাজ শুরু করেছেন সৈয়দ ফারুক। দিনরাত জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা চষে যাচ্ছেন এবং উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট প্রার্থনা চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত এ নেতা।
এক আলাপচারিতায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন-” ছাত্রজীবন থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অনুসরণ করে রাজনীতি করে এসেছি।বর্তমানে তাঁর সূযোগ্য তনয়া বাংলাদেশের উন্নয়নের রূপকার সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অনুসরণ করে রাজনীতি করে যাচ্ছি। তাঁর দিকনির্দেশনায় দেশ ও দেশের বাহিরে কাজ করে যাচ্ছি।আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তে আনুগত্যশীল হয়ে কাজ করেছি এবং আগামীতেও চালিয়ে যাবেন বলেও বলেছেন মনোনয়নবঞ্চিত এ নেতা।

তিনি উল্লেখ করে বলেন-” ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন অধ্যায়নরত তখন আমার এলাকা নিয়ে চিন্তা ভাবনা শুরু হয়। সেই চিন্তা ভাবনাকে বাস্তবে পরিণত করতে নিজেকে প্রস্তুত করতে কাজ শুরু করে।যখন প্রবাসে চলে যাই তখন প্রয়াত জাতীয় নেতা আবদুস সামাদ আজাদের সঙ্গে গিয়ে এলাকায় কাজ করেছি। তার মৃত্যুুর পরে সুনামগঞ্জ-৩ আসনে উপ নির্বাচনে নির্বাচন করার ইচ্ছা পোষণ করলে নেত্রী আমাকে নির্বাচন না করার নির্দেশ দেন এবং সেসময়ে এমএ মান্নান (বর্তমান অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী) এর পক্ষে কাজ করার নির্দেশনা প্রদান করেন।তার নির্দেশনা পেয়ে সেসময় পান পাতা নিয়ে নির্বাচন করা এমএ মান্নানের পক্ষে কাজ করেছি। এর পর আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় হাই কমান্ডের সারা পেয়ে নির্বাচন করার জন্য প্রার্থীতা ঘোষণা করি এবং দলীয় মনোনয়নপত্র পেতে কাজ চালিয়ে যাই।আমাদের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা বর্তমান সাংসদ এমএ মান্নানের প্রতি আস্তা রেখে তাঁকে দলীয় মনোনয়ন প্রদান করেছেন।আমি নেত্রীর সিদ্ধান্তের বাহিরে যাওয়ার অবকাশ দেখি না।নেত্রীর সিদ্ধান্তে দলীয় মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে এলাকায় গিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এবং নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে সকল ধরনের কাজ করে যাব।উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সারাদেশে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করে পুনরায় আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান সৈয়দ ফারুক।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *