মার্চে উপজেলা নির্বাচন-আলোচনায় আছেন বিএনপি নেতারাও


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

শামীম আহমদ তালুকদার
সত্যবাণী

সুনামগঞ্জ থেকেঃ দলীয় প্রতীকে প্রথমবারের মতো সারা দেশে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ আগামী মার্চ মাসে করতে চায় নির্বাচন কমিশন। গত বুধবার নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।মার্চ মাসে নির্বাচন হতে পারে এমন খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা নড়েচড়ে বসেছেন।বিভিন্ন প্রার্থীদের পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসুবকেও চলছে জোর প্রচার-প্রচারণা।বিএনপি কেন্দ্রীয়ভাবে কোনো ধরনের আলোচনা বা সিদ্ধান্ত গ্রহণ না করায় প্রচারণায় বিএনপি প্রার্থীরা নেই।বিএনপি’র তৃণমূল নেতাকর্মীদেরও উপজেলা নির্বাচন নিয়ে কোন ধরনের আগ্রহ লক্ষ করা যায়নি।এ প্রসঙ্গে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন জানান,অতি সম্প্রতি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নামে ভয়ংকর তামাশা ও নির্লজ্জ দৃশ্য দেখে আমরা হতবাক হয়েছি।

আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে এখনও কোনো আলোচনা বা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।তবে উপজেলা নির্বাচন নিয়ে হাট-বাজার,চায়ের দোকান,পাড়া-মহল্লায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের নামের পাশাপাশি বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা করছেন সাধারণ ভোটাররা।বিএনপির সম্ভাব্য উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীদের অনেকেই জানিয়েছেন,দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে কোন ধরনের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন না তাঁরা। দল যদি স্থানীয়ভাবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ দেন তাহলে অনেকেই প্রার্থী হবেন। সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সদ্য পদত্যাগকারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন ও সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও আপ্তাবনগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আকবর আলীর নাম নিয়ে আলোচনা রয়েছে।কিন্ত তাঁরা আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন কি না তা জানা যায়নি।বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় আলোচনা রয়েছেন,বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হারুনুর রশিদ,উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও বাদাঘাট দক্ষিণ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাড. ছবাব মিয়া ও উপজেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক অ্যাড. আব্দুল হক।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে পারেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফারুক আহমদ এবং জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আনছার উদ্দিন। তাহিরপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে পারেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আনিসুল হক। জামালগঞ্জ উপজেলায় যাদের নাম নিয়ে আলোচনা হচ্ছে তাঁরা হলেন, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা শাসছুল আলম তালুকদার ঝুনু মিয়া এবং উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাচনাবাজার ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল হক আফিন্দী। ধর্মপাশা উপজেলা বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে নাম আলোচনায় আছে একাধিক ব্যক্তির।

তবে বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল মুতালিব, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সেলবষস ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আলী আমজাদ,উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মোশাহিদ তালুকদার, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড.সাইফুল ইসলাম চৌধুরী কামাল,মধ্যনগর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও মধ্যনগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আ.কাইয়ুম মজনু’র নাম শুনা যাচ্ছে।দিরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেতা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার কাইয়ুম মিয়া ও উপজেলা যুবদলের সভাপতি মঈন উদ্দিন চৌধুরী মাসুকের নাম নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।শাল্লা উপজেলায় সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আলোচনা রয়েছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গনেন্দ্র চন্দ্র সরকার ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল। ছাতক উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে,বর্তমান উপজেলা চেয়াম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল এবং গত উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন ও ছাতক পৌরসভা জামায়াতের আমির অ্যাড.রেজাউল করিমের। দোয়ারাবাজার উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে পারেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ডা.আব্দুল কদ্দুছ,উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সামছুল হক নমু, উপজেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক ও সুরমা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান শাহজাহান মাস্টার এবং উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক জামাল উদ্দিন।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *