পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল বিধায়ককে গুলি করে খুন


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর, সত্যবাণী

কলকাতা থেকেঃ পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল তৃণমূলের নদিয়া জেলার কৃষ্ণগঞ্জের  বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে শনিবার প্রকাশ্যে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা।এঘটনায় রাজ্য জুড়ে ব্যাপক চ্যাঞ্চল্য   সৃস্টি হয়েছে। সাম্প্রতিক অতীতে কোনও শাসকদলের বিধায়ককে খুনের ঘটনা রাজ্যে আগে ঘটেনি৷ এদিন ফুলবাড়িতে সরস্বতীর পুজোর এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন তিনি।সেই সময় মঞ্চের ঠিক সামনে খুব কাছ থেকে গুলি করে তাকে খুন করে একদল দুষ্কৃতী৷ এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷

এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলের যান তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব৷ পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী৷ কী কারণে খুন তা খতিয়ে দেখা হয়েছে৷ দুষ্কৃতীরা  ঘটনাস্থলে বন্দুক ফেলে পালিয়ে যায়।নদিয়া জেলা তৃমমূল সভাপতি গৌরীশঙ্কর দত্তের অভিযোগ করেছেন এ ঘটনায় বিজেপির হাত রয়েছে।তিনি বলেন,কেন্দ্রের শাসক দলের চক্রান্তের শিকার হয়েছেন কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক৷ মনে করেন তিনি৷ এর শেষ দেখে ছাড়ব বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।তৃণমূলের নদিয়া জেলার পর্যবেক্ষক অনুব্রত মণ্ডল বলেন,সংগঠনের জোর না থাকায় খুনের রাজনীতি করছে বিজেপি৷ তাদের পায়ের তলায় মাটি নেই৷ পশ্চিমবঙ্গে তারা একটিও আসন পাবে না৷

অন্যদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তৃণমূলের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পালটা অভিযোগ করে বলেন, অনুব্রত মণ্ডলের বীরভূম থেকে নদিয়ায় আমদানি করা রাজনীতির জের এই ঘটনা৷ তবে রাজনীতি নিরপেক্ষভাবে এই ঘটনার তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি৷ তাঁর চ্যালেঞ্জ আগে এই ধরনের অভিযোগ করা হলেও তার প্রমাণ মেলেনি৷ এইবার তৃণমূল অভিযোগ প্রমাণ করে দেখাক৷যদিও বিধায়ক খুনের পিছনে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগও উঠে আসছে বিভিন্ন মহল থেকে৷ আড়নঘাটার তৃণমূল বিধায়ক সমীর পোদ্দারের দাবি,দলের কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই৷ জেলায় পঞ্চায়েতে ভালো ফল করেছিল বিজেপি৷ কিন্তু লোকসভায় তাদের পরাজয় নিশ্চিত৷ সেই জন্যই এই খুন করে এলাকায় ভীতির সঞ্চার করতে চাইছে তারা৷

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *