একাদশ নির্বাচনে আনসার-ভিডিপির ভূমিকার প্রশংসা প্রধানমন্ত্রীর


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

ঢাকাঃ বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর (ভিডিপি) ভূমিকার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,জাতীয় সংকটকালে ও জরুরি মুহূর্তে এই বাহিনী দক্ষতা ও সফলতার পরিচয় দিয়েছে।সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধেও এই বাহিনী আন্তরিকভাবে কাজ করেছে।মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সবাইকে সবসময় সজাগ থাকতে হবে।

আজ মঙ্গলবার গাজীপুরের সফিপুরে আনসার-ভিডিপি একাডেমিতে বাহিনীটির ৩৯তম জাতীয় সমাবেশ ও কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।অনুষ্ঠানে আনসার-ভিডিপির সালাম গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী।বক্তৃতার শুরুতেই ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,ভাষার মাসে ভাষা আন্দোলনে শহীদ আনসার ভিডিপির সদস্য আবদুল জব্বারকে স্মরণ করছি।যিনি মাতৃভাষার মর্যাদা আদায়ে আত্মাহুতি দিয়েছিলেন।স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে,যার নেতৃত্বে আমরা মাতৃভাষায় কথা বলার সুযোগ পেয়েছি,স্বাধীনতা পেয়েছি।জাতীয় চার নেতাকেও স্মরণ করছি।স্মরণ করছি মুক্তিযুদ্ধে শহীদ আনসার বাহিনীর ৬৭০ সদস্যকে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,মুক্তিযুদ্ধের সময় যখন মুজিবনগরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠিত হয়েছিল, তখন সেই নতুন সরকারকে গার্ড অব অনার দিয়েছিল এই আনসার বাহিনীই।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা গ্রাম বাংলায় দারিদ্র দূরিকরণের জন্য বয়স্ক ভাতা,বিধবা ভাতাসহ বিভিন্ন সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি হাতে নিয়েছি।সেই সঙ্গে আর্থিকভাবে যাতে স্বচ্ছ্বলতা আসে তার জন্য আমরা প্রতিটি মানুষের জন্য বাড়ি-ঘর নির্মাণ এবং কোন জমি যেনো পতিত না থাকে সে দিকে লক্ষ রেখে একটি প্রজেক্ট হাতে নিয়েছি।যা নাম হচ্ছে- একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প।এই নাম আমি পরিবর্তন করে রেখেছি ‘আমার বাড়ি আমার খামার’।যাতে প্রত্যেকে তাদের নিজের জমি ব্যবহার করে নিজেরাই স্ববলম্বী হতে পারে।আর এ ক্ষেত্রে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী বিশেষ ভূমিকা রাখবে এটাই আমি আশা করি।তিনি আজ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর (ভিডিপি) ৩৯তম জাতীয় সমাবেশে যোগ দিয়ে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন,আমাদের দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।আমরা আরও এগিয়ে যেতে চাই। আমরা যেনো এই অর্জনটা ধরে রাখতে পারি সেজন্য আমাদের সকলকে আন্তরিক ভাবে কাজ করতে হবে।আমরা দেশের মানুষের জীবন-মান উন্নত করতে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়ে যাচ্ছি।এছাড়াও আমরা বড় বড় প্রজেক্ট হাতে নিয়েছি।প্রসঙ্গত,প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে গাজীপু‌রের আনসার ভিডিপি একাডেমিসহ আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ শেষে বীরত্বপূর্ণ ও সেবামূলকসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের পদক প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।উল্লেখ্য,১৯৮০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ আনসার বাহিনী গঠন করা হয়।এরপর থেকে প্রতি বছর এই দিনে বাহিনীর জাতীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *