মুক্তিযুদ্ধে দরগার ইমাম হাফিজ আকবর আলী


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

IMG_2690  সৈয়দ তাহমীম

পড়ছি পাকিস্তানের ডিফেন্স জার্নালের “The Battle of Sylhet Fortress”. লিখেছেন তৎকালিন অপারেশনে নিয়োজিত অফিসার মেজর (অব) মমতাজ হসেইন শাহ। আসলেই তো সিলেট অঞ্চলে নভেম্বর- ডিসেম্বর মাসে মারাত্মক যুদ্ধ হয়েছে।  আমরা কতজন তার কতটুকু জানি ? আমাদের প্রজন্ম হলিউডের ‘র‍্যাম্বো’ দেখে অভ্যস্ত। ইরাক, আফগানিস্তান নিয়ে এখন নিয়মিত ওয়ার ফিল্ম হচ্ছে। একটু আগে ইন্ডিয়ান একটি জার্নাল পড়লাম। ১০০ শ এর উপর প্যাঁরা ট্রুপার নেমেছে সিলেট অঞ্চলে সুরমা নদীর পারে। গুর্খা রা এসেছিল সিলেটে। সালুটিকর এয়ারপোর্ট দখল নিতে।  আমরা তার কতটুকু জানি বা মনে রেখেছি?

আরেক টি কথা বলতে চাচ্ছি সেটা হলো মুক্তিযুদ্ধের নানা ঘটনা, মিথ ছড়িয়ে আছে বাংলাদেশের আনাচে কানাচে । প্রতি শহরে গ্রামে। এ গুলোর কয়টা আমরা জানি। হুমায়ুন আহমেদের ” জ্যোস্না এবং জননী ” র গল্প আমরা পড়েছি।  মসজিদের ইমাম ইরতাজউদ্দিনের চরিত্রটি আমাকে খুব আলোড়িত করেছে। একদিকে তিনি মনে ভাবছেন পাক সাফ জমিন পাক মেরা পাকিস্তান। আবার আরেক দিকে তিনি পাকিস্তান আর্মির গ্রামে অগ্নি সংযোগ, ধর্ষণ সহ্য করতে পারছেন না। পাকিস্তানী এক মেজর এক জুম্মা বারে নামাজ পড়তে এসেছেন। ইরতাজউদ্দিন সেদিন তাকে নামাজ পড়াতে অস্বীকার করছেন। পরবর্তীতে গ্রামের নদীতে ইরতাজ উদ্দিনকে স্যুট করা হয়।

আমাদেরও অনেক ইরতাজ উদ্দিন ছিলেন। লেখকের ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতাই উপন্যাসের চরিত্র হয়। চিন্তা করুন দরগাহে হজরত শাহজালাল (রহঃ) এর ইমাম হাফিজ মওলানা আকবর আলী (রহঃ ) এর কথা।  দরগায় এসে আশ্রয় নিয়েছে অসংখ্য ভয়ার্ত হিন্দু পরিবার। তিনি তাদের অভিভাবক। দরগার ভিতরে আর্মির প্রবেশাধিকার নেই। একদিন সকালে একটি জীপে করে চলে আসলেন কমান্ডিং অফিসার বিগ্রেডিয়ার ইফতেখার রানা।  দরগার ভিতরের পরিবার গুলোতে কান্নার রোল উঠলো। দরগার গেইট ছেড়ে বেরিয়ে আসলেন হাফিজ আঁকবর আলী। বললেন, দরগায় ঢুকতে হলে আমাকে হত্যা করে ঢুকতে হবে।  মেজর বললো আপনাকে হেড কোয়ার্টারে যেতে হবে। ভাব লেশ হীন ভাবে একটি চাঁদর গায়ে জড়িয়ে তিনি মেজরের সাথে বেরিয়ে পড়লেন!

হে প্রজন্ম তোমাদের কয়জন হাফিজ আঁকবর আলীর নাম জানো?

সৈয়দ তাহমীম: সত্যবাণী’র ফিচার এডিটর

20 April’2017,  08:36 BST

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

One thought on “মুক্তিযুদ্ধে দরগার ইমাম হাফিজ আকবর আলী

  • 20th April 2017 at 7:03 pm
    Permalink

    Write facts, not words!

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *