জনবান্ধব আমলাতন্ত্র কি স্বপ্নই থেকে যাবে?


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

IMG_2906 রুহুল কুদ্দুস বাবুল

স্বাধীনতা প্রাপ্তির ৪৬ বছর অতিক্রান্ত হতে চলেছে। ক্ষমতার কতইনা রঙ বেরঙের পালাবদল। কতই না স্বপ্নের ছড়াছড়ি। স্বাধীনদেশের রাস্ট্রীয় ক্ষমতা প্রয়োগের সাংগঠনিক কাঠামো সেই পুরনো আমলাতন্ত্রের হাতেই রইলো। একটা জনবান্ধব আমলাতন্ত্র স্বাধীন জাতি পেলো না ! বটবৃক্ষের মত ঠায় দাড়িয়ে রইলো সেই পুরোনো কাঠামোতেই।  এটি কি শাসক শ্রেণীর চিন্তার দৈন্যতা? নাকি অদূরদর্শিতা? নাকি ইচ্ছাকৃত জিইয়ে রাখা?
‘Government of the people, by the people, for the people’ এটা যদি শাসক শ্রেণীর মনের কথা হতো তবে দেশ জনগণেরই হতো, প্রশাসন হতো জনবান্ধব। দূর্যোগে পতিত মানুষের হাহাকার সরকারের কানে যেতো। হাওড় অঞ্চলের মানুষের ভাগ্য নিয়ে, জীবন জীবিকা নিয়ে রাজনীতির নামে বানিজ্য হয়, সাধারন মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়না।
ধান গেল এক বছরের, অন্ন ধ্বংস হলো। কিন্তু মাছ যাওয়ার পরিনাম সুদূর প্রসারি। মাছের প্রজনন মৌসুমে এমন বিপর্যয় অনেক বড় ক্ষতি। এমন হতে পারে যে হাওড় অঞ্চলের অনেক প্রজাতির মাছের বিলুপ্তি ঘটে যেতে পারে। এসব বিষয়ে ভাবনার অবকাশ নেই কারও।
মৌলানা ভাসানী বলেছিলেন-‘ক্ষুধা লইয়া যারা রাজনীতি করেন তাহারা ক্ষুধার্ত হইতে চান না, ক্ষুধার্তের মতো পরিশ্রমও করিতে চান না, ইহাই পরিহাস।’

লেখক: রাজনীতিক, সাবেক ছাত্রনেতা

21st April’2017, 21:07 BST

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *