নানান আয়োজনে নতুন বছরকে স্বাগত জানাল পশ্চিমবঙ্গ


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

রক্তিম দাশ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর,সত্যবাণী

কলকাতা থেকেঃ সংস্কৃতি বিভক্ত না হলেও এই দিনটি উদযাপনের দিনক্ষণ ঠিকই আলাদা।বাংলাদেশের পঞ্জিকা সংস্কারের জেরে পহেলা বৈশাখ আসে ইংরেজি মাসের ১৪ এপ্রিল।অন্যদিকে পশ্চিমবাংলায় ১৫ এপ্রিল উদযাপন করা হয় পহেলা বৈশাখ । আজ সোমবার নতুন বছরকে স্বাগত জানাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ। চলছে ভোটের উৎসব  নানান উৎসব অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে তার মাধ্যেই নতুন বছরকে বরন করে নেবার পালা ।বাংলা  পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে এদিন সকাল আটটা নাগাদ দক্ষিণ কলকাতায় ২টি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়।একটি গাঙ্গুলিবাগান থেকে যাদবপুর অন্যটি সুকান্ত সেতু থেকে ঢাকৃুরিয়া পর্যন্ত। এই দুটি শোভাযাত্রায় অংশ নেন  সমাজের সকল পেশার মানুষ,ছিলেন ওপার বাংলার শিল্পী,শিক্ষার্থীরাও।নাচ-গান কখনও পথনাটিকা-এর মধ্যে দিয়েই শোভাযাত্রা তার নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে যায়। বাংলাদেশের মতোই এখানেও শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষা এক সুস্থ সংস্কৃতির বার্তা তুলে ধরাই লক্ষ্য বলে জানান উদ্যোক্তারা ।প্রথমবারের মতো নববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশের আদলে মঙ্গল শোভাযাত্রা বার করে সল্টলেক এফই ব্লক রেসিডেন্সিয়াল অ্যাসোসিয়েশন।

ধুমধাম করে বর্ষবরণের অনুষ্ঠান উদযাপিত হচ্ছে  শান্তিনিকতনেও। নাচ, গান, আবৃত্তির মধ্যে দিয়ে বর্ষবরণে মেতে উঠে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও।এদিন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মভিটে কলকাতার জোড়াশাঁকো ঠাকুর বাড়িতেও সকাল থেকে সঙ্গীত,আবৃত্তি সহযোগে বর্ষবরণের নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এদিকে নতুন বছর উপলক্ষ্যে দল,রাজ্যবাসী ও দেশের মানুষের মঙ্গল কামনায় দক্ষিণ কলকাতার কালীঘাট মন্দিরে পূজা দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।রবিবার গভীর রাতে মন্দিরে যান মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূল নেত্রী নিজেই পুজোর যাবতীয় উপকরণ দিয়ে ডালা সাজান।এছাড়াও এই বিশেষ দিনে কলকাতার শহরের বিভিন্ন প্রান্তে বের হয় প্রভাতফেরী। ভোর হতেই কালীঘাটের কালী মন্দির,দক্ষিণেশ্বর মন্দির, আদ্যাপীঠ, তারাপীঠ সহ রাজ্যটির বিভিন্ন ধর্মস্থানে পূজ দেওয়ার জন্য লম্বা লাইন পড়েছিল।নতুন বছরের শুভ কামনা করে অনেকেই পূজা দেন। অনেক বাড়িতেও এদিন লক্ষী-গণেশের পূজা হয়। সঙ্গে আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থাও। এমনকী অনেক নামী রেস্তোরা গুলিতেও বিশেষ বাঙালি ভোজেরও আয়োজন করা হচ্ছে।ভাষা ও চেতনা সমিতির আয়োজনে এদিন সকাল থেকে বর্ষবরণের উৎসব শুরু হয়েছে কলকাতার অ্যাকাডেমী অফ ফাইন আর্টসের সামনে। সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে পার্ক স্ট্রিট জাদুঘরের কাছ থেকে বর্ণাঢ্য বৈশাখী শোভাযাত্রা বের হয়ে শেষ হয় আকাডেমীর সামনে। সেখানেই সারা দিন ধরে চলবে কথা,কবিতা,নাচ,গান,নাটক,ছবি আঁকা।সঙ্গে থাকছে সস্তায় পান্তাভাত-শুঁটকি,মাছ-ভাত,আলু পোস্ত,আমপোড়া সরবত। দুপুরে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় অনুষ্ঠান।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *