ওসি মোয়াজ্জেম দেশেই, যেকোনো মুহূর্তে গ্রেফতার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

নিউজ ডেস্ক
সত্যবাণী

ঢাকাঃ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন,মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ওয়ারেন্ট জারি হওয়া ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন দেশেই আছেন।তার দেশত্যাগের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং যেকোনো মুহূর্তে তাকে গ্রেফতার করা হবে।

আজ বুধবার রাজধানীর বকশীবাজারে কারা কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত ‘কারা অধিদফতরের উদ্ভাবনী মেলা ও শোকেসিং-২০১৯’ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে ধরা যাচ্ছে না,বিষয়টি ঠিক নয়।তার দেশত্যাগের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।তিনি দেশেই আছেন।আর যেকোনো সময় তাকে গ্রেফতার করা হবে।দুদক কর্মকর্তার সঙ্গে ডিআইজি মিজানের ঘুষ লেনদেনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,ডিআইজি মিজান ঘুষ কেন দিয়েছেন,নিশ্চয়ই তার কোনো দুর্বলতা আছে।সেই দুর্বলতা ঢাকতেই তিনি ঘুষ দিয়েছেন।না হয় ঘুষ দেবেন কেন? ঘুষ দেয়া-নেয়া দুটোই অপরাধ।তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।মন্ত্রী আরও বলেন,এমনিতে তার বিরুদ্ধে একটি অভিযান চলছে, এরপর নতুন করে আবার ঘুষ কেলেঙ্কারি।বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ও আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য,গত মার্চে নুসরাত তার মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করার পর তার তদন্তে তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সোনাগাজী থানায় ডেকে নিয়ে ওই মাদ্রাসাছাত্রীর জবানবন্দি নিয়েছিলেন।তার কয়েক দিনের মাথায় নুসরাতের গায়ে অগ্নিসংযোগ করা হলে তা নিয়ে সারাদেশে আলোচনার মধ্যে ওই জবানবন্দির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।অগ্নিদগ্ধ নুসরাতের মৃত্যুর পর গত ১৫ এপ্রিল ওই ভিডিও ছড়ানোর জন্য ওসি মোয়াজ্জেমকে আসামি করে ঢাকায় বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন ওই অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)।এর ধারাবাহিকতায় পিবিআই যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়,সেখানে ওসি মোয়াজ্জেমের নিজের মোবাইল ফোনে জবানবন্দি রেকর্ড করার এবং তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগের সত্যতা পায় বলে জানায়।পিবিআইয়ের দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গত ২৭ মে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।পরোয়ানা জারির দুদিনের মাথায় আদালতে হাজির না হয়ে অজ্ঞাত স্থান থেকে জামিনের আবেদন করেন সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম।

Share on Facebook0Tweet about this on TwitterShare on Google+0Email this to someonePrint this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *